চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ৬:৫৪ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

ভূগর্ভে যাচ্ছে সিঙ্গাপুরের ভবিষ্যৎ!

এশিয়ার দেশ সিঙ্গাপুর আবাসন সংকটের সঙ্গে লড়াই করছে দীর্ঘদিন ধরেই। বহুতল ভবন নির্মাণ থেকে শুরু করে সাগরে অবকাঠামো নির্মাণ করেও দেশটি বের হতে পারছে না আবাসন সংকট থেকে। কিন্তু দেশটির পরিকল্পনাবিদরা এখন আবাসনের জন্য নতুন জায়গা খুঁজছেন, যা কিনা হতে যাচ্ছে সিঙ্গাপুরের মাটির তলায়। খবর এএফপি’র।

সিঙ্গাপুর গত কয়েক দশকে জনসংখ্যা বিস্ফোরণ না ঘটিয়ে সক্ষম হয়েছে অর্থনীতিকে সচল রাখতে। কিন্তু ৫৬ লাখ জনগোষ্ঠীর শহরকে আরও কর্মক্ষম ও আবাসন স্থান বের করতে পরিকল্পনাবিদরা নজর দিয়েছেন শহরের রাস্তার নিজের জায়গায়। সিঙ্গাপুর ইতোমধ্যেই ভূগর্ভস্থ হাইওয়ে ও সুবিশাল এয়ার কন্ডিশনিং ব্যবস্থা তৈরি করেছে। কিন্তু এখন চাইছে তারা শহরের তলার মাটি ব্যবহার করে ভবন নির্মাণ করতে।

সিঙ্গাপুরভিত্তিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ফ্রস্ট এন্ড সুলিভান এএফপিকে জানায়, ‘আমাদের ভূগর্ভে বিশাল অবকাঠামো নির্মাণের বিষয়টি পরিকল্পনায় আনতে হবে। কারণ আমাদের শিল্প, বাণিজ্য প্রতিষ্ঠান, আবাসন এবং গাছপালাময় স্থান দরকার।’

চলতি বছরের মার্চ মাসে প্রকাশিত খসড়া উন্নয়ন পরিকল্পনা অনুসারে সিঙ্গাপুর কর্তৃপক্ষ মাটির তলায় নিয়ে যেতে চায় পুরো যোগাযোগ ব্যবস্থাকে। পাশাপাশি নিয়ে যেতে চায় বড় গুদামঘর ও শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোকেও। তবে মাটির তলায় মানুষের বসবাস সংক্রান্ত কোনো পরিকল্পনা এখনো নেয়া হয়নি।

ভূগর্ভস্থ নতুন এই শহর কাঠামোর মানচিত্র তৈরিতে ব্যবহার করা হবে ত্রিমাত্রিক প্রযুক্তি। প্রাথমিক পর্যায়ে তিনটি এলাকাকে চিহ্নিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির আরবান রিডেভেলপমেন্ট অথরিটি। সিঙ্গাপুরই বিশ্বে প্রথম দেশ যারা মাটির তলায় বিকল্প আবাসনের দিকে যাচ্ছে।

অবশ্য ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিঙ্কিতে গাড়ি পার্কিং, শপিংমল ও সুইমিংপুল নির্মাণ করা হয়েছে মাটির তলায় টানেল করে। এছাড়া কানাডার মন্ট্রিল শহরে টানেল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ‘ভূগর্ভস্থ শহর’ তৈরি করার পরিকল্পনা নিয়েছে।

পূর্বকোণ/রাশেদ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 520 People