চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

২২ জানুয়ারি, ২০২৩ | ১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ

ইমাম হোসাইন রাজু, কলকাতা থেকে ফিরে

রোবট করবে হার্ট সার্জারি

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হৃদরোগীদের সংখ্যাও বেড়ে চলছে বিশ্বজুড়ে। এই পরিস্থিতিতে হৃদরোগ চিকিৎসায় পথ দেখাচ্ছে কলকাতার এপোলো মাল্টিস্পেশালিটি হসপিটাল। ইতোপূর্বে সফলতার সঙ্গে নতুন নতুন পদ্ধতি আবিষ্কারের মাধ্যমে হৃদরোগের চিকিৎসায় অবদান রাখা হাসপাতালটি এরই মধ্যে দিয়েছে সুখবর।

 

 

এবার রোবটিক পদ্ধতিতে হার্টের সার্জারিও করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন হৃদরোগ চিকিৎসকগণ। ইতোমধ্যে রোবটের সাহায্যে হার্ট সার্জারি করতে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন হাসপাতালটির হৃদরোগ বিভাগের এক দল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।

 

 

চিকিৎসকরা বলছেন, রোবটিক পদ্ধতিতে সার্জারি করা হলে তাতে ঝুঁকি ও জটিলতা খুবই কম হবে। এ পদ্ধতিতে সার্জারি করা গেলে অত্যন্ত নির্ভুলভাবে কাজ সম্পন্ন করা যাবে। ফলে রোগী অনেক ঝুঁকিমুক্ত থাকবে। সময়ও অনেক কম লাগবে। এছাড়াও অল্প সময়ের মধ্যেই রোগী বাসায় ফিরতে পারবেন। এতে সময় এবং শ্রম দুটোই সাশ্রয় হবে।

 

 

রোবটিক সার্জারির প্রসঙ্গে কলকাতার এপোলো মাল্টিস্পেশালিটি হসপিটালের হৃদরোগ বিভাগের প্রধান ডা. সুশান মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘প্রতিদিনই চিকিৎসা বিজ্ঞানের নতুন নতুন উদ্ভাবন হচ্ছে। নতুন নতুন যন্ত্রপাতিও যোগ দিচ্ছে। চিকিৎসা বিজ্ঞান অনেক দূর এগিয়ে যাচ্ছে। আমরাও বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।

 

 

এবারের আমাদের টার্গেট হচ্ছে- রোবটিক পদ্ধতিতে সার্জারি সম্পন্ন করা। যদিও ইতোপূর্বেও রোবটিক পদ্ধতিতে হার্টের এনজিওপ্লাস্টি বা রিং পরানোর মতো কাজ করা হয়েছে। তবে আগামীতে হার্ট সার্জারিতেও একই পদ্ধতিতে কাজ করতে গবেষণা কার্যক্রম চলছে। একটি রোবট হাতের সঙ্গে সংযুক্ত করে খুব ছোট সরঞ্জাম ব্যবহার করে অস্ত্রোপচার করা হবে। হার্টের চিকিৎসায় এ নবসূচনা রোগী ও চিকিৎসকদের জন্য সহায়ক হবে। আশা করছি খুব শীঘ্রই এ কার্যক্রম শুরু করা যাবে।’

 

 

ছোট্ট ছিদ্রের মাধ্যমেই বাইপাস সার্জারি : কাটা ছেঁড়া ছাড়াই ছোট্ট একটি ছিদ্রের মাধ্যমে কলকাতার এপোলো হাসপাতালেই নিয়মিত হচ্ছে হার্টের বাইপাস সার্জারি। গত এক যুগ ধরে চলা এ পদ্ধতিকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় এমআইসিএস (মিনিম্যালি ইনভেসিভ কার্ডিয়াক সার্জারি)। শুধু বাইপাস সার্জারিই নয়, এমআইসিএস পদ্ধতিতে ভালব প্রতিস্থাপন, হার্টের ছিদ্র বন্ধ করা, কার্ডিয়াক টিউমার অপসারণ, পেস মেকার ইমপ্লাটেশনসহ ৯৫ শতাংশ হৃদরোগের সার্জারি করা হয় এ আধুনিক পদ্ধতির মাধ্যমে। যেখানে ৮০ থেকে ৯০ বছরের বেশি বয়সী রোগীদের জন্যও এ পদ্ধতি নিরাপদ বলে জানিয়েছেন হৃদরোগ চিকিৎসকরা।

 

 

হার্ট সার্জারির আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি নিয়ে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. সুশান মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘ইদানিংকালে চিকিৎসা বিজ্ঞানের অভূতপূর্ব উন্নতিতে হার্ট সার্জারি আর জটিল ও সময়সাপেক্ষ প্রক্রিয়া নয়। আধুনিক পদ্ধতিতে অনেক দ্রুত হৃদপিণ্ড অস্ত্রোপচার সম্ভব। এমআইসিএস পদ্ধতিতে মাত্র ২ থেকে ৩ ইঞ্চি ফুটো করে সার্জারি সম্পন্ন করা হয়।

 

 

তাতে সুবিধা হচ্ছে- প্রচলিত ওপেন হার্ট সার্জারিতে ৮ থেকে ১০ ইঞ্চির পরিবর্তে এই পদ্ধতিতে সার্জারি করলে কোন হাড় কাটার প্রয়োজন হয় না। তাতে করে রক্তক্ষরণ কম হয়। ফলে ৩ থেকে ৫ দিনের মধ্যে বাড়ি ফিরে যেতে পারেন রোগীরা। অনেক ক্ষেত্রে এক সপ্তাহ পর স্বাভাবিক জীবন ফিরে যেতে পারেন। এ পদ্ধতি নিরাপদ, কার্যকরী এবং রোগীকে স্বস্তি প্রদান করে।

 

 

৪ হাজারের বেশি সফল এমআইসিএস এপোলোতে : কলকাতার এপোলো মাল্টিস্পেশালিটি হসপিটালে ছোট্ট ছিদ্রের মাধ্যমে (এমআইসিএস পদ্ধতি) এ পর্যন্ত চার হাজারের বেশি হার্ট সার্জারি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

 

 

হাসপাতালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) রানা দাশ গুপ্ত বলেন, ‘প্রতি মাসে ৪০টিরও বেশি এমআইসিএস পদ্ধতিতে সার্জারি করা হয় হাসপাতালটিতে। ইতোমধ্যে এ সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়েছে। এ পদ্ধতিতে সার্জারি করার পর অল্প সময়ের মধ্যেই বাড়ি ফিরে যেতে পারছেন রোগীরা। কোন ধরনের হাড় কাটার প্রয়োজন হয় না। তাতে সার্জারির ক্ষতও শরীরে থাকে না। কাটাছেঁড়ার দাগও থাকার সম্ভাবনা নেই।’

পূর্বকোণ/আরএ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট