চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

২৮ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১২:৪৯ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পশ্চিমের দেশে তেল রপ্তানি নিষিদ্ধ করে ডিক্রি জারি পুতিনের

এ মাসের প্রথম সপ্তাহে রাশিয়ার তেলের দাম নির্ধারণ করার ঘোষণা দেয় পশ্চিমা দেশগুলো। জি-৭, অস্ট্রেলিয়া এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলো রাশিয়ার তেলের জন্য ব্যারেল প্রতি সর্বোচ্চ ৬০ ডলার মূল্য নির্ধারণ করে। অবশেষে তেলের দাম নিয়ে পশ্চিমা দেশগুলোর নেয়া সিদ্ধান্তের জবাব দিয়েছে মস্কো।

 

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) নতুন একটি ডিক্রি জারি করেছেন। যেসব দেশ ও কোম্পানি পশ্চিমা দেশগুলোর ‘তেলের মূল্য বেঁধে দেওয়ার’ নিয়ম মেনে চলবে তাদের কাছে অপরিশোধিত তেল বিক্রি নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে এ ডিক্রিতে।

 

ওই সময় রাশিয়ার পক্ষ থেকে এর বিরোধিতা করা হয়। তারা জানায়, মূল্য বেঁধে দেওয়ায় কঠোর জবাব দেওয়া হবে। অবশেষে মঙ্গলবার সেই জবাব দিল তারা।

 

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দপ্তর ক্রেমলিনের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, যেসব দেশ তেলের মূল্য বেঁধে দিয়েছে এবং এর সঙ্গে যোগ দিয়েছে সেসব দেশের কাছে ২০২৩ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে পরবর্তী পাঁচ মাস অপরিশোধিত তেল রপ্তানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য তেল পণ্য নিয়েও পরবর্তীতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হবে। তবে বিশেষ ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্ট পুতিন এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে পারবেন বলে ডিক্রিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

 

রাশিয়া যেন তেল বিক্রি করে যুদ্ধের অর্থের যোগান না দিতে পারে সে জন্য তাদের সমুদ্রবাহিত অপরিশোধিত তেলের একটি নির্দিষ্ট মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছিল পশ্চিমারা। যদিও রাশিয়া এখন ওই মূল্য থেকে কম দামে ভারত-চীনের মতো দেশগুলোর কাছে তেল বিক্রি করছে।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবের পর রাশিয়া হলো বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম তেল রপ্তানিকারক দেশ। যদি আন্তর্জাতিক বাজারে তাদের তেল রপ্তানি বিঘ্ন ঘটে তাহলে বিশ্বব্যাপী জ্বালানির সংকট দেখা দিতে পারে। তেল নিয়ে পুতিনের ডিক্রি জারির পরই বাজারে এর প্রভাব পড়েছে এবং মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। সূত্র: আল জাজিরা

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট