চট্টগ্রাম শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

১২ নভেম্বর, ২০২২ | ৮:৩৭ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

‘আগামী ৪ মাসে করোনায় আক্রান্ত হতে পারে ২০ লাখ মানুষ’

আগামী বছরের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি নাগাদ বিশ্বজুড়ে আরও ২০ লাখ মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে বলে জানিয়েছে গবেষকরা। ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক এ তথ্য জানায়।

বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সামনের মাসগুলোতে এখনকার তুলনায় আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা বাড়লেও মৃত্যু বাড়বে না বলেই প্রত্যাশা করছে ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট ফর হেলথ মেট্রিক্স অ্যান্ড ইভালুয়েশন (আইএইচএমই)। এ সময়জুড়ে উত্তর গোলার্ধে শীত ঋতু বিরাজ করার কারণেই এমনটা ঘটবে বলে গবেষণায় ধারণা দেওয়া হয়েছে।

 

আইএইচএমই-এর গবেষকরা জানান, বিশ্বজুড়ে দৈনিক কোভিড-১৯ সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা এখনকার গড়ের চেয়ে ফেব্রুয়ারিতে ২০ লাখ বেশি বাড়বে। ফলে দৈনিক সংক্রমণ এখনকার এক কোটি ৬৭ লাখের চেয়ে ধীরগতিতে বেড়ে ফেব্রুয়ারিতে এক কোটি ৮৭ লাখে দাঁড়াবে। বিশ্বজুড়ে কোভিডে দৈনিক মৃত্যুর গড় আগামী ১ ফেব্রুয়ারি নাগাদ ২ হাজার ৭৪৮ হতে পারে, এখন যা এক হাজার ৬৬০’র কাছাকাছি আছে।

ওমিক্রনের দাপটের কারণে সর্বশেষ শীতে বিশ্বজুড়ে সংক্রমণের সর্বোচ্চ সময়ে জানুয়ারিতে গড়ে প্রতিদিন আনুমানিক প্রায় ৮ কোটি মানুষ কোভিড আক্রান্ত হতে পারে বলে আগের গবেষণাগুলোতে ধারণা দেওয়া হয়েছিল, সেই তুলনায় আসছে মাসগুলোতে সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা অনেক কম থাকবে বলে এবারের গবেষণা প্রতিবেদনে অনুমান প্রকাশ করা হয়েছে।

 

এদিকে ওমিক্রনের নতুন উপ-ধরন বিএ.৫ বিশ্বে তেমন প্রভাব ফেলতে পারবে না বলে জানিয়েছেন তারা। গবেষকদের মতে, জার্মানিতে সাম্প্রতিক সময়ে কোভিডের যে ঊর্ধ্বগতি দেখা গেছে তার পেছনে ওমিক্রনের উপ-ধরন বিকিউ.১ ও বিকিউ.১.১ দায়ী এবং আসছে সপ্তাহগুলোতে এই উপ-ধরন দুটি ইউরোপের অন্যান্য অংশেও ছড়িয়ে পড়বে বলে তাদের প্রতিবেদনে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, সিঙ্গাপুরে সম্প্রতি হাসপাতালে কোভিড রোগী ভর্তি বাড়ার পেছনে দায়ী ওমিক্রনের নতুন উপ-ধরন এক্সবিবি; এটি বেশি সংক্রামক হলেও কম মারাত্মক।

 

পূর্বকোণ/এএস/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট