চট্টগ্রাম বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

১৮ অক্টোবর, ২০২২ | ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

নরওয়ে সীমান্তে যুদ্ধবিমান, পরমাণু হামলার ভীতি

পরমাণু হামলার শঙ্কা আরো বাড়িয়ে দিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। গণবিধ্বংসী অস্ত্র বহনে সক্ষম ১১টি রুশ যুদ্ধবিমান ন্যাটো সীমান্তের কয়েক মাইল দূরে মোতায়েন করেছেন তিনি। মার্কিন স্যাটেলাইটের তথ্য অনুযায়ী কোলস্কি উপদ্বীপের ওলেনিয়া বিমান ঘাঁটিতে এসব যুদ্ধবিমান মোতায়েন করা হয়েছে। যা নরওয়ে থেকে মাত্র ২০ মাইল দূরে।

ইউক্রেনে স্থলযুদ্ধে রুশ বাহিনীর বিপর্যয়, ক্রিমিয়া সেতুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, বেলগোরোদে রুশ অস্ত্রাগারে হামলা- বিপর্যস্ত এমন পরিস্থিতি মোকাবেলায় ১০ অক্টোবর ইউক্রেনজুড়ে বৃষ্টির মতো মিসাইল ছোঁড়ে রাশিয়া। এসব হামলায় সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তু ধ্বংসের দাবি করেছে ক্রেমলিন। মস্কোর হাতে থাকা দুইটি অস্ত্রের একটি, আকাশপথ ব্যবহার করে সর্বাত্মক হামলা। যা পুতিন ইতোমধ্যে চালিয়ে যাচ্ছেন। নিজেদের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদারে মরিয়া জেলেনস্কি।

কিয়েভের পশ্চিমা মিত্ররা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সরবারহে। পুতিনের হাতে থাকা অন্য অস্ত্রটি হলো, কৌশলগত পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার। ৭ অক্টোবর মার্কিন স্যাটেলাইট অপারেটর ‘প্ল্যানেট’ ল্যাবের তথ্য অনুযায়ী, রাশিয়ার কোলস্কিতে ওলেনিয়া বিমান ঘাঁটিতে ১১টি পরমাণু অস্ত্রবাহী যুদ্ধবিমান মোতায়েন করেছেন পুতিন।

যেগুলো ২১ আগস্ট থেকে ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে মোতায়েন করা হয়। তারমধ্যে টিইউ-ওয়ান সিক্স জিরো কৌশলগত যুদ্ধবিমান সাতটি, চারটি টি ইউ-নাইনটি ফাইভ। রাশিয়ার ঘাঁটিটি মার্কিন নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্য নরওয়ের সীমান্ত থেকে মাত্র ২০ মাইল দূরে অবস্থিত। টিইউ-ওয়ান সিক্স জিরো সর্বাধুনিক ম্যাক-টু প্রযুক্তিতে তৈরি এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় যুদ্ধবিমান। যা একবার জ্বালানি নিয়ে সাড়ে সাত হাজার মাইল একটানা উড়তে পারে।

বহন করতে পারে স্বল্প পাল্লার ১২টি পরমাণু মিসাইল। টিইউ-নাইটি ফাইভ কৌশলগত যুদ্ধবিমান। যা বেয়ার্স নামেও পরিচিত।পুতিনের বিমানবহরে নিযুক্ত অন্যতম বৃহৎ বিমান এটি। ক্রুজ মিসাইল ছাড়াও বড় আকারের পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম এই বিশেষ বিমানটি। দুই সপ্তাহ আগে জেরুজালেম পোস্ট জানায়, ওলেনিয়া বিমানঘাঁটিতে আকস্মিকভাবে সাতটি পরমাণু অস্ত্রবাহী যুদ্ধবিমান মোতায়েন করেছে রাশিয়া।

নতুন এ খবর আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আবারো পুতিনের পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের শঙ্কায় উদ্বেগ তৈরি হয়। এসব যুদ্ধবিমান সাধারণত মস্কো থেকে ৪৫০ দূরে অ্যাঞ্জেল বিমানঘাঁটিতে রাখা থাকে।যা ন্যাটো সদস্য নরওয়ে থেকে ১১৫, জোটের সদস্য হতে যাওয়া ফিনল্যান্ড থেকে ৯৫ মাইল দূরে অবস্থিত। এসব খবরে বৃহস্পতিবার রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছে ন্যাটো।

 

পূর্বকোণ/আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট