চট্টগ্রাম সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

২৬ আগস্ট, ২০২২ | ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদের সেই ইমামের ১০ বছরের কারাদণ্ড

‘সৌদি আরবে কনসার্ট ও কিছু অনুষ্ঠানের বিষয়ে খুতবায় সমালোচনাকারী’ মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদের সাবেক ইমাম শেখ সালেহ আল তালিবের দশ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আপিল আদালত। আরব বিশ্বে গণতন্ত্র নিয়ে কাজ করা সংস্থা ডন এক টুইটে এ রায়ের কথা জানিয়েছে।

শেখ সালেহ আল তালিবকে দেওয়া পূর্বের খালাসের রায় বাতিল করে এই কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন রিয়াদের বিশেষ ফৌজদারি আপিল আদালত।

২০১৮ সালে তালিবকে প্রথম আটক করে সৌদি কর্তৃপক্ষ এবং তাকে গ্রেপ্তারের কোনো কারণ জানানো হয়নি।

মানবাধিকার কর্মীদের মতে, সৌদি আরবের বিনোদন শিল্প নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে থাকা সরকারি সংস্থা জেনারেল এন্টারটেইনমেন্ট অথরিটির সমালোচনা করে বক্তৃতা দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে তাকে আটক করা হয়।

তিনি কনসার্ট এবং ইভেন্টের নিন্দা করে বলেছিলেন, এগুলো দেশের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক রীতিনীতির সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়।

তালিবের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিশ্বব্যাপী অনুসারী রয়েছে, হাজার হাজার মানুষ ইউটিউবে তার খুতবা এবং কুরআন তেলাওয়াত দেখে। সৌদির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সমাজ সংস্কার এবং উপসাগরীয় দেশটির তেলনির্ভর অর্থনীতিকে বহুমাত্রিক করার জন্য অভিযান চালানোর সময় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, এমবিএস যুবরাজ হিসেবে কার্যত ক্ষমতা গ্রহণ করার পর তার সংস্কার এজেন্ডার সমালোচনাকারী কয়েক ডজন বিশিষ্ট আলেম ও ইমামকে গ্রেপ্তার করেছে কর্তৃপক্ষ।

আটককৃতদের মধ্যে সালমান আল-ওদাহ রয়েছেন, যিনি সৌদি আরবের নেতৃত্বে অবরোধ আরোপের পর জনগণকে কাতারের সঙ্গে তাদের মতভেদ মিটমাট করার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

প্রয়াত সাংবাদিক জামাল খাশোগির প্রতিষ্ঠিত সংগঠন ডন টুইটারে তালিবকে আদালতের সাজা দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

ডন-এর মুখপাত্র আবদুল্লাহ আলাউদ তার কারাদণ্ডের নিন্দা করে বলেছেন, এটি সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সংস্কারের বিরুদ্ধে কথা বলার জন্য আলেম ও ইমামদের দেওয়া কারাদণ্ডাদেশের অংশ।

তিনি বলেন, সামাজিক পরিবর্তনের সমালোচনা করার জন্য গ্র্যান্ড মসজিদের ইমাম সালেহ আল তালিবের ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং বাস্তব সামাজিক সংস্কারের আহ্বান জানানোর জন্য নারী কর্মী সালমা আল-শেহাবের ৩৪ বছরের সাজা একটি চরম বিপত্তি, যা আমাদের বার্তা দেয়- এমবিএসের নিপীড়ন প্রতিটি গোষ্ঠীকে হুমকির মুখে ফেলেছে।

আবদুল্লাহ আলাউদ আরও বলেন, ইমাম আল তালিবসহ সব রাজনৈতিক বন্দিদের মধ্যে যেটি মিল রয়েছে, তা হলো তারা শান্তিপূর্ণভাবে তাদের মতামত প্রকাশ করে গ্রেপ্তার হয়েছেন। এই নিপীড়ন সবার বিরুদ্ধে বন্ধ হওয়া উচিত।

সম্প্রতি গ্রেপ্তার হওয়া সমালোচকদের মধ্যে রয়েছেন পিএইচডি শিক্ষার্থী সালমা আল-শেহাব। তিনি সৌদি সরকারের সমালোচনামূলক টুইট করার জন্য ৩৪ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন। সূত্র : মিডল ইস্ট আই

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট