চট্টগ্রাম সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

৯ আগস্ট, ২০২২ | ১২:০১ অপরাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

আজ আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস আজ। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে মিল রেখে বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে দিবসটি। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ‘আদিবাসী’ শব্দটি ব্যবহার না করার বিষয়ে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সেক্ষেত্রে ‘ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়।

 

বাংলাদেশে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীদের মধ্যে বিরাট একটি অংশ দেশের পার্বত্য অঞ্চলসহ বিভিন্ন এলাকায় বাস করে। বাংলাদেশে বাংলা ছাড়াও ৪০টি ভাষা রয়েছে। যার প্রায় সবই ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর। তবে এসব ভাষার অধিকাংশই এখন বিলুপ্তির পথে। কার্যকর ব্যবহার ও উদ্যোগ না থাকায় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ভাষা হারিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন গবেষকরা।

 

তারা বলেন, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ভাষা হারিয়ে যাওয়ার প্রধান কারণ তারা নিজেরাই। সরকার সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে। তারপরও নিজেদের ভাষা রক্ষা করতে পারছে না ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীরা। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার স্বার্থে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ভাষা-সংস্কৃতি টিকিয়ে রাখা প্রয়োজন।

 

১৯৯৪ সালে জাতিসংঘের গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ১৯৯৫ সাল থেকে ৯ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস পালন করে আসছে বিশ্বের প্রায় ৩০ কোটি আদিবাসী। ১৯৯২ সালে জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের উন্নয়ন ও সংরক্ষণ উপকমিশনের কর্মকর্তারা তাদের প্রথম সভায় আদিবাসী দিবস পালনের জন্য ৯ আগস্টকে বেছে নেন। আদিবাসী জনগণের মানবাধিকার, পরিবেশ উন্নয়ন, শিক্ষা ও সংস্কৃতি সম্পর্কিত বিভিন্ন সমস্যা নিরসনের লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সুদৃঢ় করা ও গণসচেতনতা সৃষ্টি করাই বিশ্ব আদিবাসী দশক, বর্ষ ও দিবস পালনের মূল উদ্দেশ্য।

 

বাংলাদেশ সরকার বিশ্বের আদিবাসী জনগোষ্ঠীর অধিকার, স্বীকৃতি ও দাবির প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তবে নৃ-তাত্ত্বিক ও সাংবিধানিকভাবে বাংলাদেশে কোনো সুনির্দিষ্ট কোনো আদিবাসী জনগোষ্ঠী নেই। বাংলাদেশের ভূমিজ সন্তান বা আদি বাসিন্দা হলো এখানকার মূল জনগোষ্ঠী যারা নানা পরিচয়ের পরিক্রমায় বাঙালি বলে পরিচিতি লাভ করেছে।

 

 

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট