চট্টগ্রাম রবিবার, ০৭ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৬ জুলাই, ২০১৯ | ১:৪১ পূর্বাহ্ণ

দেশে ফিরেই জনতার মুখোমুখি ইমরান ‘কারও কাছে মাথা নত করিনি’

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্র সফরে গিয়েই সমালোচনার মুখে পড়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। দেশটিতে চলমান অর্থনৈতিক মন্দা কাটাতে তিনি বিদেশিদের কাছে ভিক্ষা চাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিরোধীরা।
তবে, দেশে ফিরেই সে সমালোচনার কড়া জবাব দিয়েছেন ইমরান। গতকাল বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে পাকিস্তান ফিরে ইসলামাবাদ বিমানবন্দরেই জনতার মুখোমুখি হন তিনি।
এসময় ইমরান খান বলেন, আমি কারও কাছে মাথা নত করিনি, আর আমার জাতিকে তা করতেও দেবো না। আমরা আত্মমর্যাদাশীল জাতি। মহানবী (স.) মদিনায় যে নীতি চালু করেছিলেন, সে নীতি অনুসারে আমাদের দেশকে বিশ্বের অন্যতম সেরা হিসেবে তৈরি করতেই আমার সব প্রচেষ্টা।
এর আগে, বিরোধী দলীয় নেতা পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) চেয়ারম্যান বিলওয়াল ভুট্টো জারদারি এ সপ্তাহের শুরুতে অভিযোগ করেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার প্রথম যুক্তরাষ্ট্র সফরে জাতিকে লজ্জায় ডুবিয়েছেন।
এক টুইটবার্তায় তিনি বলেন, ইমরান এক জন শাসক, নেতা নন। পাকিস্তানের এমন একজন নেতা দরকার, যিনি শুধু নিজের জন্য নয়, সব পাকিস্তানির জন্য কথা বলবেন। যদি সরকার বিরোধীদের কাজ করে, আর বিরোধীরাও বিরোধীদের কাজ করে, তাহলে দেশ চালানোর জন্য থাকলো কে?
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, তিন দিনব্যাপী সফরে খরচ কমাতে বিশেষ প্লেনের বদলে বাণিজ্যিক প্লেনে যুক্তরাষ্ট্র যান ইমরান খান। সেখানে গিয়ে কোনো পাঁচ তারকা হোটেলে না উঠে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতের বাসায় ওঠেন তিনি।
সফরকালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট পেডানাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। এদিকে মার্কিন সফরের মধ্যেই পাকিস্তানে সন্ত্রাসবাদের উপস্থিতি নিয়ে চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করেন পাক প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, পাকিস্তানে ৪০ সন্ত্রাসবাদী সংগঠন সক্রিয় ছিল, কিন্তু গত ১৫ বছরে পাক সরকার এই সত্যি আমেরিকাকে জানায়নি। তিনি আরও বলেন, ‘পাকিস্তানে ৪০ জঙ্গি সংগঠন ছিল। পাক নাগরিকরা বেঁচে থাকতে পারবে কি না সে নিয়েও সংশয় ছিল একসময়।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 284 People

সম্পর্কিত পোস্ট