চট্টগ্রাম রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

সর্বশেষ:

২৪ জুলাই, ২০১৯ | ২:০১ পূর্বাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

‘৩য় পক্ষ’ ছাড়া কাশ্মীর সমস্যার সমাধান দেখেন না ইমরান !

কাশ্মীর নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে চলমান দ্বন্দ্ব তৃতীয়পক্ষের হস্তক্ষেপ ছাড়া সমাধান হবে না বলে মনে করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার মতে, শুধু দুই দেশের মধ্যে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে শান্তি ফেরানো আর সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখতে পারে যুক্তরাষ্ট্র, বিশেষ করে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কাশ্মীর ইস্যুতে
। ১১ পৃষ্ঠার ৬ষ্ঠ ক.

মধ্যস্ততাকারী হতে চেয়ে ট্রাম্পের বক্তব্য দেওয়ার কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে এ মন্তব্য করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।
বুধবার (২৩ জুলাই) মার্কিন সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেন, জেনারেল পারভেজ মোশাররফ ও ভারতের (সাবেক) প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর সময় এটা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল, যখন কাশ্মীর ইস্যু সমাধানের আমরা খুব কাছাকাছি চলে এসেছিলাম। কিন্তু, তারপর থেকেই আমরা দুই মেরুতে। আমি সত্যিই মনে করি, ভারতের আলোচনার টেবিলে আসা উচিৎ। এতে যুক্তরাষ্ট্র বড় ভূমিকা রাখতে পারে, বিশেষ করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অনেক বড় ভূমিকা রাখতে পারেন।
ভারত বরাবরই দ্বি-পক্ষীয় আলোচনার মাধ্যমে পাকিস্তানের সঙ্গে সব অমীমাংসিত সমস্যা সমাধানের কথা বলে আসছে। এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা পৃথিবীর একশ’ তিরিশ কোটি মানুষের ব্যাপারে কথা বলছি। ভাবুন তো, কোনো ভাবে (কাশ্মীর) ইস্যুটির সমাধান হলে কতটা শান্তি আসবে!
অপর এক প্রশ্নের জবাবে ইমরান জানান, ভারত যদি তাদের সব পারমাণবিক অস্ত্র ধ্বংস করে ফেলে, তাহলে পাকিস্তানও একই কাজ করবে। তিনি বলেন, পারমাণবিক যুদ্ধ কোনো সমাধান নয়। ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে পারমাণবিক যুদ্ধ মানে নিজেদেরই ধ্বংস করে দেওয়া। কারণ, আমাদের আড়াই হাজার মাইল সীমান্ত এলাকা রয়েছে।
পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের চেয়ারম্যান বলেন, আমি মনে করি, এ উপমহাদেশে একটা ধারণা আছে যে, গত ফেব্রুয়ারিতে কিছু ঘটনা ঘটেছে, যাতে সীমান্তে উত্তেজনা শুরু হয়েছেৃ এ কারণেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে বলেছি, যদি তিনি তার ভূমিকা রাখেন, বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রই পারে কাশ্মীর ইস্যু সমাধানে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্ততা করতে।
ক্ষমতায় বসার পর প্রথমবারের মতো তিন দিনব্যাপী সফরে যুক্তরাষ্ট্রে আছেন পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক থেকে প্রধানমন্ত্রী বনে যাওয়া ইমরান খান।
তিনি বলেন, কাশ্মীরের কারণেই ৭০ বছর ধরে আমরা সভ্য প্রতিবেশীর মতো থাকতে পারছি না।
২০১৬ সালে পাঠানকোট বিমানঘাঁটিতে সন্ত্রাসী হামলার পর থেকেই পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্কের তীক্ততা বেড়েছে ভারতের। তখন থেকেই আর কোনো ধরনের দ্বি-পক্ষীয় আলোচনায় বসেনি দেশ দু’টি। এর জন্য পাকিস্তানকে দায়ী করে ভারত বলছে, সন্ত্রাস ও আলোচনা একসঙ্গে চলতে পারে না। ফের আলোচনায় বসার আগে পাকিস্তানকে অবশ্যই সীমান্ত-সন্ত্রাস বন্ধ করতে হবে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 336 People

সম্পর্কিত পোস্ট