চট্টগ্রাম বুধবার, ০৩ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৪ জুলাই, ২০১৯ | ১:১৮ পূর্বাহ্ণ

সবুজে ঢাকতে কায়রো’র অভিনব উদ্যোগ

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : সাপও মরলো, লাঠিও ভাঙলো না, এমন সমাধানসূত্র কে না চায়। মিশরের রাজধানী কায়রো শহরকে সবুজে ঢাকতে অভিনব উপায় অবলম্বন করেছে একটি বেসরকারি সংস্থা। বিভিন্ন বাড়ির ছাদের ওপর বাগান বসিয়ে পরিবেশ ও অর্থনীতির উন্নতির চেষ্টা করছে তারা।
কায়রোর বাসিন্দা মোহাম্মদ তাহা প্রতিদিন নিজের বাগানের পরিচর্যা করেন। এল বাসাতিন এলাকার মসজিদের মুয়াজ্জিন হিসেবে তিনি ৩ বছর ধরে ছাদের বারান্দায় নানা ধরনের শাকসবজির চাষ করছেন। তার প্রচেষ্টায় কায়রো শহরের কংক্রিটের জঙ্গলের মধ্যে একফালি সবুজের ছোঁয়া এসেছে। তিনি বলেন, ‘আমি মূলত এই এলাকা ও ছাদের উপর পরিষ্কার এক পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাই। এর বেশি কিছু নয়। এতে যা আয় হয়, তা মসজিদের চ্যারিটি ট্রাস্টে চলে যায়’।
কায়রো-ভিত্তিক সংগঠন শাদুফ বিনামূল্যে সব বন্দোবস্ত করেছে। আট বছর আগে শেরিফ হোসনি ও তার ভাই এই এনজিও প্রতিষ্ঠা করেন। তারা হাইড্রোপনিক্স পদ্ধতি প্রয়োগ করার সিদ্ধান্ত নেন, কারণ তাতে খুব কম পানির প্রয়োজন হয়। মাটিও লাগে না। প্রায় যে কোনো ছাদের উপরেই কার্যকর এই ব্যবস্থা গড়ে তোলা যায়। শেরিফ হোসনি বলেন, ‘এমন প্রকল্প স্বল্প আয়ের পরিবারের জন্য বিশেষভাবে কার্যকরী হয়। ছাদে বাগান বসিয়ে শাকসবজি বিক্রি করে তাদের আয় কিছুটা বাড়াতে পারে। ফলে শুধু পরিবেশগত নয়, সামাজিক ক্ষেত্রেও এই উদ্যোগ সুবিধা বয়ে আনছে’।
হেলাওয়ানের মতো অপেক্ষাকৃত দরিদ্র এলাকায় বাড়ির ছাদ প্রায়ই পুরানো আবর্জনায় ভরে থাকে। শাদুফ সেখানে ৫০০ বাগান তৈরি করছে।
ছাদে বাগান গড়ে তুলতে প্রায় ৬৩০ ইউরো ব্যয় হয়। কিন্তু পরিবারগুলিকে মাত্র ২০ ইউরো দিতে হয়। সুইজারল্যান্ডের এক ফাউন্ডেশন ৯৫ শতাংশ ব্যয়ভার বহন করে। শাদুফ উদ্বৃত্ত শাকসবজি কিনে নিয়ে অন্যান্য স্থানীয় এনজিওর সাহায্যে কায়রো শহরে বিক্রি করে। কয়েকটি পরিবারের এমন উৎসাহ বাকিদেরও সেই পথে আসতে উদ্বুদ্ধ করবে, এমনটা আশা করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 206 People

সম্পর্কিত পোস্ট