চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই, ২০২২

সর্বশেষ:

১৭ জানুয়ারি, ২০২২ | ৪:৪৬ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

তাবিজ বাবার আজব কাণ্ড : ১৫ হাজারে দূর হবে করোনা

মাত্র ১৫ হাজার টাকা খরচ করলেই চোখের নিমেষে উধাও হয়ে যাবে করোনা। তবে সেই টাকায় নিতে হবে তাবিজ। সঙ্গে মানতে হবে আরও কিছু নিয়ম। এমন দাবি করেই তাবিজ ব্যবসা ফেঁদে বসেছিলেন ভারতের পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়া শিল্পাঞ্চলের পার্শ্ববর্তী সুতাহাটার রামচন্দ্রপুরের বাসিন্দা সৈয়দ আব্দুল কাদের (৭৭)। কাদেরের এই করোনা ‘কেরামতি’র খবর পেয়ে তৎপর হয়েছে পুলিশ। এর পরই উধাও হয়েছেন তাবিজ বাবা।
কাদেরের দাবি, ‘করোনা কোনও ভাইরাসঘটিত রোগ নয়। এটা আল্লাহর গজব। আমার তাবিজেই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। কলকাতা, বাটানগর, দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরের বহু মানুষ এই তাবিজ নিয়েছেন। তারা সকলেই সুস্থ আছেন।’
তার আরও দাবি, ‘আমার পরিবারের সদস্য এবং অনেককে তাবিজ দিয়েছি। তাবিজ, তেলপড়া, জলপড়া দেওয়া হচ্ছে। তাতে কাজ হচ্ছে। এতে মানুষের উপকার হবে।’ সেই সঙ্গে তার প্রশ্ন, ‘সন্তানের করোনা হলে কি তাকে বাঁচানোর জন্য ১৫ হাজার টাকা দিতে পারবেন না?’

বিষয়টি নিয়ে সোচ্চার হয়েছেন জেলার চিকিৎসক মহল এবং বিজ্ঞান মঞ্চ। পশ্চিমবঙ্গ বিজ্ঞান মঞ্চের পূর্ব মেদিনীপুর জেলা কমিটির সহ-সভাপতি সুব্রতকুমার মাইতির বলেন, ‘কোভিড-১৯ একটি ভাইরাস জনিত রোগ। অতিমারির হাত থেকে রক্ষার পথ মাস্ক পরা, হাত ধোওয়া, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং টিকা নেওয়া। কিন্তু কিছু মানুষ তাবিজ, তাগা-তাবিজ দিয়ে, করোনা দেবীর পুজো করে পয়সা উপায় করছেন। এটা কুসংস্কার ছাড়া আর কিছু নয়। যাকে মূলধন করে এই সমস্ত ব্যবসায়ীরা ব্যবসা করছেন। প্রশাসনের উচিত কড়া ব্যবস্থা নেওয়া।’
তাবিজবাবার এ ধরনের আচরণের খবর ছড়িয়ে পড়তে খুব বেশি সময় লাগেনি। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসতেই কাদেরের সন্ধানে নামে সুতাহাটা থানার পুলিশ। এর পর সোমবার (১৭ জানুয়ারি) সকাল থেকে অবশ্য আর বাড়িতে দেখা যায়নি ওই বাবার। তার পরিবারের দাবি, উনি বিশেষ কাজে বাইরে গেছেন। তবে তিনি কোথায় গেছেন তা তার পরিবারের সদস্যরা জানাননি। সূত্র : আনন্দবাজার

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন