চট্টগ্রাম সোমবার, ০৮ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ১:১২ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনার টিকা নেয়ার আগেই বিদায় নিলেন ক্যাপ্টেন টম মুর, কাঁদল পুরো জাতি

পুরো জাতিকে কাঁদিয়ে শতবর্ষী ক্যাপ্টেন টম মুর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। গত রবিবার (৩১ জানুয়ারি) করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতলে ভর্তি হন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর এই ক্যাপ্টেন।

করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ফ্রন্টলাইন যোদ্ধাদের সহায়তার লক্ষ্যে প্রায় ৩৩ মিলিয়ন পাউন্ড ফান্ডরাইজিং করে ‘হিরো’ হিসেবে খ্যাত হয়েছিলেন। আর তাই বিশ্বব্যাপী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বরেণ্য ব্যক্তিবর্গ অবিরাম শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন শতবর্ষী এই ক্যাপ্টেনকে।

ব্রিটেনের রানী কুইন এলিজাবেথ ব্যক্তিগতভাবে ১০০ বছর বয়সী ক্যাপ্টেন স্যার টম মুরকে সম্মান জানিয়েছেন। বাকিংহাম প্যালেসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কুইন ক্যাপ্টেন স্যার টম মুরের পরিবারকে শোকের একটি ব্যক্তিগত বার্তা পাঠাচ্ছেন। গত মাসে উইন্ডসরে ক্যাপ্টেন স্যার টম এবং তার পরিবারের সাথে দেখা হয়ে রানী তার মহিমা আন্তরিকভাবে উপভোগ করেছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ক্যাপ্টেন টমের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের সাথে সাথে ডাউনিং স্ট্রিটের পতাকাগুলি অর্ধনমিত করা হয়। প্রধানমন্ত্রী তাকে বিশ্বের আশার বাতিঘর হিসাবে প্রশংসা করেন। লন্ডন আই, ওয়েম্বলি স্টেডিয়াম এবং ব্ল্যাকপুল টাওয়ার তার সম্মানে আলোকিত হয়েছিল।

বরিস জনসন বলেন, ক্যাপ্টেন স্যার টম মুর সত্যিকার অর্থে একজন নায়ক ছিলেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অন্ধকার দিনগুলিতে তিনি স্বাধীনতার জন্য লড়াই করেছেন। এদেশের গভীরতম যুদ্ধ-সংকটের মুখে তিনি আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন। তিনি আমাদের সবাইকে উত্সাহিত করেছেন এবং তিনি মানব চেতনার জয়কে মূর্ত করেছেন।

এনএইচএসের জন্য ৩৩ মিলিয়ন পাউন্ড সংগ্রহের জন্য তার বাগানে ঘুরে ঘুরে দেশের মানুষের হৃদয় জয় করে গেছেন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের এই সমর নায়ক। তিনি কেবল একটি জাতীয় অনুপ্রেরণা হয়ে ওঠেননি, বিশ্বজয়ের আশার বাতিঘর হয়েছিলেন। আমাদের একান্ত ভাবনা তার মেয়ে হান্না এবং তার পরিবারের সাথে রয়েছে বলেও ‍উল্লেখ করেন বরিস জনসন।

ক্যাপ্টেন টম মুরের পরিবার জানায়, মারা যাওয়ার আগে তাকে ‘শ্বাসকষ্টে সাহায্যের প্রয়োজন’ হওয়ায় হাসপাতালে নেয়া হয়েছিল। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে নিউমোনিয়ায় ভুগছিলেন। হঠাৎ করে করোনা পজেটিভ শনাক্ত হন। রবিবার শ্বাসকষ্ট বাড়ার সাথে সাথে বেডফোর্ড হাসপাতালে নেয়া হয়। তিনি নিউমোনিয়ার চিকিৎসা নিচ্ছিলেন বলে করোনা ভাইরাস টিকা নেয়া হয়নি। শতবর্ষী ব্যক্তিত্ব বেডফোর্ড হাসপাতালে পরিবারকে সাথে নিয়ে শেষ মুহূর্তের সময়ে শান্তিপূর্ণভাবে ইহত্যাগ করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৩০ এপ্রিল জন্মদিনের আগে আড়াই কিলোমিটার হেঁটে স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য সোয়া তিন কোটি পাউন্ড অর্থ সংগ্রহ করে স্যার টম মুর। এতে দেশ-বিদেশে ব্যাপকভাবে প্রেরণা সঞ্চার করেছিলেন তিনি। ক্যাপ্টেন টম মুরের এই অনন্য অবদানের জন্য ব্রিটেনের রানী তাকে ‘নাইট’ উপাধি দান করেন।

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 231 People

সম্পর্কিত পোস্ট