চট্টগ্রাম শনিবার, ০৬ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ | ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক 

প্রধান বিমানবন্দর বন্ধ: বেশিরভাগ মন্ত্রী গৃহবন্দী

মিয়ানমার থমথমে, সু চি কোথায়?

অভ্যুত্থানের একদিন পর থমথমে মিয়ানমারের অবস্থা অনেকটা স্বস্তিহীন শান্তির মতো। বড় শহরগুলোতে সৈন্যরা টহল দিচ্ছে এবং রাস্তাঘাট নীরব হয়ে পড়েছে। তার সঙ্গে রয়েছে রাত্রিকালীন কারফিউ। ইয়াঙ্গুনে দেশটির প্রধান বিমানবন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন এয়ারপোর্টের ম্যানেজার।

মিয়ানমার টাইমস পত্রিকা জানিয়েছে, আগামী ১ জুন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক এ বিমানবন্দর বন্ধ থাকবে এবং বাতিল করা হয়েছে সব ধরনের ফ্লাইট উঠা নামার অনুমতি। দেশটির নভেম্বরের নির্বাচনে বিজয়ী এনএলডি নেতা অং সান সু চিসহ নেতাদের আটকে রাখা হলেও বেশিরভাগ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে মুক্তি দিয়ে গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে। অং সান সু চি কি অবস্থায় আছেন সে সম্পর্কে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি আসেনি। তবে সু চির একজন প্রতিবেশী তাকে দেখেছেন নিজ বাসার কম্পাউন্ডে। খবর বিবিসির।

এনএলডির প্রেস অফিসার কি তো এএফপিকে বলেছেন, ‘তার প্রতিবেশী একজন জানিয়েছেন, সু চি ভালো আছেন জানাতে কিছু সময় তিনি কম্পাউন্ডে হাঁটাহাঁটি করেছেন।’ তবে সেনা কর্তৃপক্ষের দিক থেকে এখনো এনএলডি নেত্রীর বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি। ধারণা করা হচ্ছে তাকে গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে।

মিয়ানমারের ফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ আবার চালু হয়েছে গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে। যদিও ইয়াঙ্গুনে অনেকেই মনে করছেন, গণতন্ত্রের জন্য তাদের দীর্ঘ লড়াই হেরে গেছে। আবার কিছু ক্ষেত্রে প্রতিবাদও দেখা যাচ্ছে। যেমন সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসকরা অং সান সু চির মুক্তির দাবিতে আজ বুধবার থেকে কাজ বন্ধের হুমকি দিয়েছেন। সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে তারা কালো ব্যাজ ধারণ করেছেন।

ইয়াঙ্গুন থেকে বিবিসি বার্মিজ জানিয়েছে, একদিন আগের সেনা অভ্যুত্থানকে হজম করে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে পঞ্চাশ লাখ মানুষের শহর ইয়াঙ্গুন। সকালেও রাস্তাগুলো ছিলো স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় অনেকটাই নীরব। টেলিযোগাযোগ ফিরে আসায় আতঙ্কও কিছুটা কমে এসেছে। একদিন বন্ধ থাকার পর বেসরকারি ব্যাংকগুলো তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে। রাজধানী নেপিডোতে পার্লামেন্ট ভবনের চারপাশে সৈন্যরা ট্যাংক নিয়ে টহল দিচ্ছে।

মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের কারণে দেশটির রাখাইন রাজ্যে বসবাসরত প্রায় ৬ লাখ রোহিঙ্গা মুসলমানের পরিস্থিতি আরও সংকটপূর্ণ হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে জাতিসংঘ। গতকাল মঙ্গলবার বার্তাসংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানায়। ১৫ সদস্য বিশিষ্ট জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সভায় মিয়ানমারের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান কূটনীতিকরা।

অং সান সু চি ১৯৮৯ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত আটক অবস্থায় ছিলেন। এবার আটকের আগ মুহূর্তে দেয়া বিবৃতিতে তিনি জনগণকে অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে প্রতিরোধের ডাক দিয়েছেন।

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 153 People