চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১

১৩ জানুয়ারি, ২০২১ | ৫:৪৪ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

করোনা টিকার গণপ্রয়োগ শুরু ইন্দোনেশিয়ায়

অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে চীনা ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি সিনোভ্যাক বায়োটেকের তৈরি ভ্যাকসিন গণহারে প্রয়োগ বাস্তবায়নের ওপর জোর দিচ্ছে ইন্দোনেশিয়া।
বুধবার (১৩ জানুয়ারি) দেশটির প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো নিজে টিকা গ্রহণের মাধ্যমে ভ্যাকসিন গণহারে প্রয়োগের উদ্বোধন করেছেন।

জাকার্তার প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসের বারান্দায় বুধবার (১৩ জানুয়ারি) এ উপলক্ষে একটি অস্থায়ী ভ্যাকসিন কেন্দ্র স্থাপন করা হয়। সেখানে নিজের ট্রেডমার্ক সাদা টি-শার্ট পরে তিনি টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণ করেন। এদিন দেশটির ধর্মীয় নেতা, সামরিক বাহিনী প্রধান এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রীও প্রেসিডেন্টের সঙ্গে টিকা গ্রহণ করেন।

বিজ্ঞাপন

টিকা গ্রহণের পর প্রেসিডেন্ট উইদোদো জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে টিকাদান কর্মসূচির মাধ্যমে দেশের মানুষের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে। পাশাপাশি অর্থনীতি পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

করোনা সংক্রমণরোধ না হওয়ায় সামাজিক বিধিনিষেধ ২০২০ সালের তৃতীয় প্রান্তিকে দুই দশকের মধ্যে দেশটিকে প্রথম আর্থিক মন্দায় ফেলেছে। বার্ষিক অর্থনীতির চিত্রও ছিল মন্দাময়। তাই করোনা রোধে অন্যদের মতো ইন্দোনেশিয়াও ভ্যাকসিন প্রয়োগের ওপর গুরুত্বারোপ করছে।

এ পর্যন্ত ব্যবহারের উপযোগী সিনোভ্যাকের ৩০ লাখ ডোজ টিকা পেয়েছে ইন্দোনেশিয়া। মঙ্গলবার ১২ লাখ ডোজ টিকা সারাদেশে বিতরণ করা হয়েছে। এদিনই দেড় কোটি ডোজ টিকা ইন্দোনেশিয়ায় পৌঁছেছে বলে জানায় সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে দেশটির কর্তৃপক্ষ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ১৪ লাখ স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা কর্মসূচির আওতায় আনতে কাজ করছে। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, তারপর ১ কোটি ৭৪ লাখ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীকে এর আওতায় আনা হবে।

তবে দেশটির সরকারের দাবি, অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে গতি ফেরাতে চায় কর্তৃপক্ষ। যদিও সিনোভ্যাকের টিকা বয়স্কদের জন্য কতটা কার্যকর তার পর্যাপ্ত তথ্য এখনো জানা যায়নি।

আগামী ১২ মাসে ১৮ কোটি ১০ লাখ মানুষকে টিকা কর্মসূচির আওতায় নিয়ে আসা হবে বলে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় দাবি করছে। তাদের বিশ্বাস হার্ড ইমিউনিটি তৈরিতে এ সংখ্যক মানুষের টিকাদান নিশ্চিত করা জরুরি।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 156 People

মন্তব্য দিন :

সম্পর্কিত পোস্ট