চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

২ জুন, ২০১৯ | ১:৫৫ পূর্বাহ্ণ

চীনকে কাছে পেতে দালাই লামাকে দূরে ঠেলে দিলো ভারত!

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : একসময় তিব্বতিদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা দালাই লামা ছিলেন সাদরে গৃহীত ব্যক্তিত্ব ও চীনকে মোকাবিলায় ভারতের হাতে থাকা ট্রাম্প কার্ড। এখন তিনি উভয় অবস্থানই হারিয়ে ফেলেছেন।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রথম মেয়াদে (২০১৪-১৯) তার অবস্থা ছিল এমন এবং বর্তমানেও তা ভালোভাবেই বহাল থাকবে বলেই মনে হচ্ছে।
মোদির পরিকল্পনা অনুযায়ী তারা বাতিলের খাতায় চলে গেছে। ৩০ মের ঘটনায় বিষয়টি জোরালোভাবে ফুটে ওঠেছে। মোদির শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠানে প্রবাসী তিব্বতি সরকারের কাউকেই আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।
অবশ্য ২০১৪ সালেও আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। তবে তখন তা ভুল বা মনে না থাকার বিষয় বিবেচিত হয়েছিল বলে মনে হয়েছিল। কিন্তু একই ঘটনা ২০১৯ সালে ঘটা মানে ভারতে প্রবাসী এক লাখ ৪০ হাজার তিব্বতির জন্য একটি জোরালো ও পরিষ্কার বার্তা বহন করে। কিন্তু ২০১৯ সালে কোনো ভুল কিংবা এড়িয়ে যাওয়ার ব্যাপার নয়। চীনের সাথে আরো ভালো সম্পর্ক বজায় রাখার স্বার্থে তিব্বতিদের বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে মোদি সরকার।
অন্য কথায় বলা যায়, মোদির কাছ থেকে যে বার্তাটি এসেছে তা হলো এই যে চীনের সাথে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক উন্নত করাটা প্রবাসী তিব্বতি সরকারের চেয়ে অনেক বেশি অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত বিষয়। এখন তিব্বতিরা গলার কাঁটা হয়ে ওঠেছে ভারতের। বিষয়টি যথাযথ হয়েছে কী হয়নি, সেটা অপ্রাসঙ্গিক। তিব্বতের প্রবাসী সরকার কিংবা খোদ তিব্বতিদের চেয়ে ভারতের স্বার্থই এখন অনেক বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে মোদি প্রশাসনের কাছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 255 People