চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯

২৩ নভেম্বর, ২০১৯ | ৬:০৪ পূর্বাহ্ন

হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায় আতা ফল

সুগন্ধযুক্ত আতা ফলটি শুধু দেখতেই সুন্দর নয়, মানব শরীরের জন্যও বেশ উপকারী। খাবার তালিকায় আতা ফল রাখলে খুব সহজেই মিলবে বেশকিছু উপকারিতা। পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ আতায় প্রতি ১০০ গ্রাম ফলে পাওয়া যায় ২৫ গ্রাম শর্করা, ৭২ গ্রাম পানি, ১.৭ গ্রাম প্রোটিন, ৩৩ আইইউ ভিটামিন এ, ১৯২ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি, ৩০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ০.৭ মিলিগ্রাম আয়রন, ১৮ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম, ২১ মিলিগ্রাম ফসফরাস, ৩৮২ মিলিগ্রাম পটাসিয়াম ও ৪ মিলিগ্রাম সোডিয়াম। আতায় প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকায় শরীরের হাড় মজবুত করে। পটাশিয়াম ও ভিটামিন বি-৬ রক্তের উচ্চচাপ নিয়ন্ত্রণ করে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতেও সাহায্য করে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। এতে প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম রয়েছে। তাই এ উপাদানটি রক্তবাহের প্রাচীরকে রিলাক্সে রাখতে সাহায্য করে। যে কারণে রক্তচাপ ক্রমে নিয়ন্ত্রণে আসে। পাশাপাশি খারাপ কোলেস্টেরলকে শরীর থেকে বের করে দেয় এই ফলটি। আতা ফলে থাকা ফসফরাস হজম শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে ও পেটের সমস্যা দূর করে। আতায় ভিটামিন-এ আছে, যা দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। এছাড়া আয়রনের পরিমাণ বেশি

থাকায় রক্তশূন্যতা দূর করে। তাই এনিমিয়া বা রক্তশূন্যতায় যারা ভুগছেন, তাদের জন্য আতা খুব উপকারী ফল। লোহিত রক্তকণিকা বাড়তেও সাহায্য করে আতা। আতায় রয়েছে প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট যা ফ্রি রেডিক্যাল নিয়ন্ত্রণ করে ত্বককে রক্ষা করে। এছাড়া ত্বকে বার্ধক্য বিলম্বিত করে এই ফলটি। এতে উপস্থিত ভিটামিন এ এবং সি চোখ, চুল ও ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

The Post Viewed By: 38 People

সম্পর্কিত পোস্ট