চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

২১ জানুয়ারি, ২০২৩ | ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বয়স্ক ও শিশুদের জন্য উপকারী

পুষ্টিগুণে ভরা মটরশুঁটি খেতে বেশ সুস্বাদু। সাধারণত এটি শীতকালে পাওয়া যায়। এক বর্ষজীবী উদ্ভিদ, ডাল জাতীয় এ খাবারটি মানব শরীরের জন্য খুবই উপকারী। বয়স্কদের পাশাপাশি শিশুদের জন্য আরো বেশি উপকারি মটরশুঁটি। তাই সকলের উচিৎ প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় এটি রাখার অভ্যাস করা।

 

 

মটরশুঁটিতে ফ্যাট এবং ক্যালোরির পরিমাণ খুবই কম। তাই বেশি খেলেও কম ক্যালোরি পাওয়া যায়, ফলে কম ক্যালোরিতে অধিক সময় পেট ভরিয়ে রাখা যায়। এটি অধিক খাবারের চাহিদা থেকে দূরে রাখে। ওজন কমাতেও এটি খুবই সহায়ক। পাকস্থলীর ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

 

 

এতে কেমোস্ট্রোল নামক পলিফেনল রয়েছে, যেটি ক্যান্সার প্রতিরোধে খুবই সহায়ক। তাই পাকস্থলীর সুস্থতায় মটরশুঁটি খাওয়া খুবই জরুরি। মটরশুঁটিতে রয়েছে অনেক এন্টি-অক্সিডেন্ট যা দেহের অনেক খারাপ বিক্রিয়া প্রতিরোধ করে। ফলে অনেক কঠিন রোগ থেকে বাঁচায় মানব শরীরকে। এছাড়াও রয়েছে বিভিন্ন ধরনের মিনারেল যেমন-আয়রন, ক্যালসিয়াম, জিংক, কপার ইত্যাদি। যা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। বুড়িয়ে যাওয়া রোধ করে।

 

 

এতে রয়েছে প্রচুর এন্টি-এক্সিডেন্ট যেমন ফ্ল্যাভানয়েডস, ক্যাটেসিন, এপিক্যাটেসিন, ক্যারোটিনয়েডস যা ত্বকের উজ্জ্বলতা ধরে রাখে এবং বুড়িয়ে যেতে বাঁধা দেয়। এতে ভিটামিন-কে রয়েছে যা বাতের ব্যথা প্রতিরোধে সাহায্য করে। রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে খুব ভালো কাজ করে। এতে থাকা ফাইবার এবং প্রোটিন যেটি গ্লোকোজ পরিপাক হওয়ার সময় বাড়িয়ে দেয়।

 

 

পাশাপাশি এটি কোনো অতিরিক্ত চিনি বহন করে না এবং রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। চোখের দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধি করে। চুল পড়া রোধ করে। হজম ক্ষমতা বাড়ায়। এতে থাকা ফলিক এসিড যা বাচ্চার মস্তিষ্কের বিকাশের জন্য খুবই প্রয়োজন। তাই গর্ভবতী মায়ের অবশ্যই মটরশুঁটি প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখা উচিৎ।

পূর্বকোণ/আরএ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট