চট্টগ্রাম রবিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

১০ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১২:৩১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্তন ও কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে

ফুলকপি শীতকালীন সবজি। তবে এখন বছরের অধিকাংশ সময় কম-বেশি পাওয়া যায়। এ সবজিটি নানারকম পুষ্টিগুণে ভরপুর। এতে রয়েছে ভিটামিন, মিনারেল, এন্টিঅক্সিডেন্ট ফাইটকেমিকেলসহ বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান। ফুলকপিতে সালফারের যৌগ সালফোরাফেন থাকে যা ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে রাখে। সালফোরাফেন ডিএনএ-এর মিথাইলেশনের সাথে সম্পর্কিত যা কোষের স্বাভাবিক কাজের জন্য এবং জিনের সঠিক প্রকাশের জন্য অত্যাবশ্যকীয়, বিশেষ করে ধমনীর ভেতরের প্রাচীরের।

 

সালফোরাফেন ক্যান্সার সৃষ্টিকারী কোষ ধ্বংস করতে পারে এবং টিউমারের বৃদ্ধিকে বাধা দেয়। বিশেষ করে মহিলাদের স্তন ও পুরুষের কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। ফুলকপিতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন-সি। পাশাপাশি আছে ভিটামিন কে, ভিটামিন বি৬, প্রোটিন, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, ফাইবার, পটাসিয়াম ও ম্যাঙ্গানিজ। এই সবজিতে আরেকটি উপকারী যৌগ কোলাইন-বি ভিটামিন রয়েছে। এটি মস্তিষ্কের উন্নয়নে সাহায্য করে। প্রেগনেন্সির সময়ে ফুলকপি খেলে ভ্রূণের মস্তিষ্কের গঠনে সাহায্য করে।

 

জ্ঞান, শিক্ষা এবং স্মৃতিশক্তির উন্নয়নে সাহায্য করে কোলাইন। সুস্বাস্থ্যের জন্য শরীরে নির্দিষ্ট পরিমাণ দহন হওয়া জরুরি। তবে দহনের পরিমাণ বেড়ে গেলে তা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। সেক্ষেত্রে ক্যান্সার বা এ ধরনের রোগের আশঙ্কা বেড়ে যেতে পারে।

 

ফুলকপিতে রয়েছে ‘এন্টি-ইনফ্লেমেটরি নিউট্রিয়েন্টস’, যা শরীরের দহন প্রক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। এতে আরো রয়েছে এন্টিঅক্সিডেন্ট ও সালফার-জাতীয় উপাদান। যা খাবার হজম প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে। তাছাড়া ফাইবার খাবার হজম হতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

 

পূর্বকোণ/আর

 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট