চট্টগ্রাম রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২

২ নভেম্বর, ২০২২ | ৭:১৯ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

নরম পানীয় বা গরম পানিতে, বুকের জ্বালা কমবে যেভাবে

এসিডিটি হলে যে কোনও ঠাণ্ডা পানীয় খাওয়াই শরীরের জন্য ক্ষতিকারক। কারণ ঠাণ্ডা পানির সংস্পর্শে রক্তবাহিকাগুলি সঙ্কুচিত হয়ে যায়। ওষুধের দোকান না খুঁজে খেতে পারেন এক কাপ লেবু দেওয়া চা।

বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমাদের প্রায়ই বাইরে খাওয়া লেগে থাকে। সেই সঙ্গে রাত জাগা, পানি কম খাওয়া তো আছেই। ফল স্বরূপ বদহজম, বুকজ্বালা, চোঁয়া ঢেকুরের বাড়-বাড়ন্ত। এ দিকে মুখে কাউকেই বলতে পারছেন না যে, এত অত্যাচার পেট সহ্য করতে পারছে না।

সাময়িক কষ্ট লাঘব করতে ঠাণ্ডা নরম পানীয় খেতে শুরু করলেন। আবার স্বাস্থ্য সচেতন মানুষরা সে সব না খেয়ে বাড়ি ফিরেই ফ্রিজ থেকে ঠাণ্ডা পানি নিয়ে, ঢক ঢক করে খেয়ে ফেললেন। কারণ অনেকেই মনে করেন, শরীর খারাপ যেমনই হোক, পানিই সব রোগের ওষুধ। কিছু ক্ষেত্রে সে কথা একেবারে ফেলে দেওয়ার নয়। তবে, বদহজম বা এসিডিটির ক্ষেত্রে ঠাণ্ডা পানি খাওয়া কতখানি বিপদ ডেকে আনতে পারে, তা অনেকেই হয়তো জানেন না।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এসিডিটি হলে যে কোনও ঠাণ্ডা পানীয় খাওয়াই শরীরের জন্য ক্ষতিকারক। কারণ ঠাণ্ডা পানির সংস্পর্শে রক্তবাহিকাগুলি সংকুচিত হয়ে যায়। রক্ত সঞ্চালনও বিঘ্নিত হয়। খাবারের থেকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি শরীর গ্রহণ করতে পারে না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই পরিস্থিতি সামাল দিতে পারে গরম পানীয়। বাড়ি ফিরেই এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে এক চামচ লেবুর রস এবং একটু আদার রস মিশিয়ে খেয়ে নিন। তৎক্ষণাৎ আরাম পেতে এই টোটকা অব্যর্থ।

ভাবছেন, রাস্তায় গরম পানি, লেবু, আদা এসব কোথায় পাবেন? সে ক্ষেত্রে আপনার অস্ত্র হল চা। চিনি এবং দুধ ছাড়া আদা অথবা লেবু দেওয়া চা খেলেও একই ফল মিলবে।

 

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন