চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

৮ অক্টোবর, ২০২২ | ১১:৩৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

রক্তের অভাব পূরণ করে

সবজি হিসেবে মিষ্টি কুমড়া অত্যন্ত জনপ্রিয়। প্রচুর স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে এতে। চিকিৎসকরাও মিষ্টি কুমড়া খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। তবে এর শাকও স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিন দিন এই শাক খাওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

কুমড়া শাক খেলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ, চোখের সমস্যাসহ অনেক রোগ থেকে মুক্তি মেলে। উজ্জ্বল করে ত্বক। কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-এ ও সি রয়েছে। এটি ত্বককে উজ্জ্বল করে তোলার পাশাপাশি চুলও ভালো রাখে। শরীরের প্রয়োজনীয় সব পুষ্টি সরবরাহ করে বলে যেসব মা শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ান, তাদের জন্যও কুমড়া শাক খুব উপকারী। এ শাকে প্রচুর পরিমাণে আয়রন রয়েছে। আর এই উপাদানটি দেহে রক্তের অভাব হতে দেয় না। নারী ও শিশুদের মধ্যে আয়রনের ঘাটতি বেশি থাকে। তাদের খাদ্যতালিকায় এই শাক রাখা প্রয়োজন। এতে থাকা ভিটামিন-সি ক্ষত সারাতে বেশ কার্যকর। শারীরিক কোনো আঘাত বা অভ্যন্তরীণ সমস্যা রোধেও এই শাক বেশ উপকারী। দাঁত ও হাড় মজবুত করতেও সহায়তা করে।

দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার কুমড়া শাকের তরকারি, স্যুপ বা কুমড়া পাতার রস খেতে পারেন। এতে চোখে কম দেখার সমস্যা দূর হবে এবং ছানির মতো সমস্যাও প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে। প্রোটিন-সমৃদ্ধ কুমড়া শাক রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। যা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুব উপকারী। এছাড়া এই শাক খেলে রক্তের কোলেস্টেরলও নিয়ন্ত্রণে থাকে।

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট