চট্টগ্রাম শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

সর্বশেষ:

২৫ জুলাই, ২০১৯ | ১:১২ পূর্বাহ্ণ

মরিয়ম বেগম

গ্যাস-বুকজ্বলায় কাবু বাঙালি

কাঁড়ি-কাঁড়ি অ্যান্টাসিড বাঙালি জীবনের অঙ্গ। তবু সে গ্যাস আর বুকজ্বলাকে কাৎ করতে পারেনি। সর্বক্ষণ হয় তার পেট ফুলছে বা বদহজম হচ্ছে। খাবার দেখলে লোভ হচ্ছে, কিন্তু খেতে ভয় করছে। পেটরোগা বাঙালির দীর্ঘদিনের এই স্বাস্থ্যশত্রুদের নিয়ে লিখেছেন চিকিৎসক।

(গত সংখ্যার পর)
বেশি মশলাদার ও বাইরের জাঙ্ক ফুড এড়িয়ে চলুন। বেশি ক্ষণ খালি পেটে থাকবেন না। একসঙ্গে বেশি খাবার খাবেন না। দৈহিক ওজনের দিকে লক্ষ্য রাখুন। বিশেষ করে পেটে অতিরিক্ত মেদ চাপ সৃষ্টি করে অম্বলের অনুভূতি বাড়িয়ে দেয়। ঢিলা পোশাক ব্যবহার করুন। বিশেষ করে কোমরের কাছে। চায়ের পাতলা লিকার খান। গ্যাস কমাতে ভাল করে চিবিয়ে খাবার খান। মুখের লালা য় অনেক উৎসেচক থাকে যা খাদ্য পরিপাকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করে। জল খাওয়ার সময় বোতল থেকে সরাসরি না খেয়ে গ্লাস এ ঢেলে খান। গুরুপাক খাদ্য এড়িয়ে চলাই ভাল। টাটকা রান্না করা খাবার খান। বাইরের বা স্ট্রিট ফুড এড়িয়ে চলুন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। অর্থাৎ নখ ছোট করে কাটুন। রান্না বা খাওয়ার আগে ভাল করে হাত ধুয়ে নিন।
একমাত্র বাজার চলতি অ্যান্টাসিড ট্যাবলেট ছাড়া অন্য কোনও ওষুধ নিজের থেকে খেতে যাবেন না। দূরে থাকুন ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রকোলির মতো আনাজ থেকে। এগুলিতে পেট ফাঁপে। বিনস-এ উপস্থিত অলিগোস্যাকারাইড হজম করতে পারে না আমাদের শরীর, সেটা পেটের ভিতর গ্যাসের জন্ম দেয়। ময়দা রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা বাড়ায়, বাড়ায় ফ্যাটের স্টোরেজ। সেই সঙ্গে তা গ্যাসও তৈরি করে পেটে।
প্রচুর চিনি মেশানো থাকে যে কোনও কার্বনেটেড পানীয়তে। আপনার রোজের খাবারের সঙ্গে যখন সেটা পান করছেন, তখন হজমে ব্যাঘাত ঘটবেই। আর খাবার হজম হতে যত দেরি হবে, পেটে গ্যাসের পরিমাণ তত বাড়বে। দই আর টক ফল আলাদা আলাদা ভাবে শরীরের জন্য খুব ভাল। কিন্তু দুটোকে একসঙ্গে মেশাবেন না, তাতে হজম হতে অনেক দেরি হবে। একান্তই যদি কখনও দই আর এই ধরনের ফল একসঙ্গে খেতে চান, তা হলে খেয়াল রাখবেন দই যেন ঘরের তাপমাত্রায় থাকে। সেই সঙ্গে যোগ করে নিন সামান্য মধু আর এক চিমটে দারুচিনির গুঁড়ো। দইয়ের সঙ্গে ডাল খেতে পারেন, কিন্তু দুধের সঙ্গে ডাল নৈব নৈব চ। মাছ আর দুধএকসঙ্গে খেলেই হজমের গোলমাল হতে পারে।গ্যাস ও বুকজ্বলা দূর করতে তুলসী পাতা, মৌরি, দারুচিনি, ঘোল, গুড়, লবঙ্গ, জিরাপানি, আদা, ঠা-া দুধ, , নারকেলের জল, পুদিনা পাতা, টক দই, কলা খুবই উপকারী। (শেষ) [সূত্র : ম্যানস হেলথ]

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 483 People

সম্পর্কিত পোস্ট