চট্টগ্রাম রবিবার, ২৯ মে, ২০২২

২২ জানুয়ারি, ২০২২ | ১:৩৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

হাড়ের সুরক্ষায় অত্যন্ত প্রয়োজনীয় কিশমিশ

পুষ্টিগুণে ভরপুর কালো কিশমিশ। তাই ১২ মাসই খাবার তালিকায় রাখা উচিত। কালো আঙ্গুরকে শুকিয়ে তৈরি করা হয় কালো কিশমিশ। কালো কিশমিশে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, আয়রন, ভিটামিন সি, পটাসিয়াম, পলিফেনল এবং ক্যালসিয়াম রয়েছে। সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে খেতে পারেন কিশমিশ। কিশমিশে থাকা উচ্চমাত্রার পটাসিয়াম শরীরে সোডিয়ামের পরিমাণ কমাতে সহায়তা করে এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। কালো কিশমিশ ক্যালসিয়াম ও পটাশিয়াম সমৃদ্ধ, যা হাড়ের সুরক্ষায় অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। কালো কিশমিশে থাকা মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট অস্টিওপোরোসিস প্রতিরোধ করতে সহায়ক। প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে।

চুল ভালো রাখতে কালো কিশমিশের জুড়ি নেই। এতে থাকা ভিটামিন সি চুলে পুষ্টির জোগান দেয়। শরীরের জন্য ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের প্রভাব কমাতে সাহায্য। এতে থাকা পলিফেনলস, বিভিন্ন কোলেস্টেরল শোষক এনজাইমকে নিয়ন্ত্রণ করে শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে আনতে সাহায্য করে। আয়রন সমৃদ্ধ এ খাবার রক্তশূন্যতা দূর করতে কার্যকর ভূমিকা রাখে। দাঁতের ক্ষয় রোধ করে দাঁত মজবুত রাখে। মুখে থাকা জীবাণুর বিরুদ্ধেও লড়াই করে এটি।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন