চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২১

সর্বশেষ:

১৬ অক্টোবর, ২০২১ | ১০:৩৫ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

জলপাই কোলন ক্যান্সারের ঝুঁঁকি কমায়

জলপাই কমবেশি সবাই পছন্দ করেন। টক জাতীয় ফলটি লবণ-মরিচ দিয়ে মেখে খেতে ভীষণ মজা। আবার এর মিষ্টি আচারও বেশ মুখরোচক। কাঁচা জলপাইয়ে রয়েয়ে প্রচুর পুষ্টিগুণ। যা মানব শরীরের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

প্রতিদিন জলপাই খাওয়ার অভ্যাস করলে স্বাস্থ্য ভালো থাকে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ে। এর খোসায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আঁশ। এই আঁশ নিয়মিত খাবার হজমে সাহায্য করে। পাশাপাশি পাকস্থলী, ক্ষুদ্রান্ত, বৃহদন্ত্র ও কোলন ক্যান্সারের ঝুঁঁকি কমাতে সাহায্য করে।

জলপাইয়ের তেলও খুব স্বাস্থ্যকর।  হৃদ যন্ত্রের জন্য খুবই কার্যকর ফল এটি। কোনো মানুষের রক্তে ক্ষতিকর মুক্ত কণিকা ও কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে গেলে হার্ট এটাকের ঝুঁকি বেড়ে যায়। জলপাই ও এর তেল হার্ট এটাকের ঝুঁকি কমায়। এতে থাকা এন্টিঅক্সিডেন্ট রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। ফলে কমে যায় হৃদরোগের ঝুঁঁকি। জলপাই ভিটামিন ই’র বড় উৎস। ক্ষতিকর মুক্ত কণিকা ধ্বংস করে। ফলে শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। ভিটামিন ই কোষের অস্বাভাবিক গঠনে বাধা দেয়। ফলে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে।

জলপাইয়ের তেলে রয়েছে ফ্যাটি এসিড ও এন্টিঅক্সিডেন্ট। যা ত্বক ও চুল ভালো রাখে। তেল চুলের গোড়ায় লাগালে গোড়া মজবুত হয়। এছাড়া ত্বককে ক্যান্সার থেকেও বাঁচায়। সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির কারণে ত্বকের যে ক্ষতি হয় তাও রোধ করে। বয়সের কারণে অনেকেরই হাড়ের ক্ষয় হয়। হাড়ের ক্ষয়রোধ করে। রক্তের চিনি নিয়ন্ত্রণে রাখে। ফলে ডায়াবেটিসও নিয়ন্ত্রণে থাকে।

প্রতি ১শ’ গ্রাম জলপাইয়ে খাদ্যশক্তি রয়েছে ৭০ কিলোক্যালরি, ৯ দশমিক ৭ মিলিগ্রাম শর্করা, ৫৯ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ১৩ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি।

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 250 People

সম্পর্কিত পোস্ট