চট্টগ্রাম সোমবার, ১৭ মে, ২০২১

সর্বশেষ:

৪ মে, ২০২১ | ১:৩০ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

অতিরিক্ত ভিটামিন খাওয়ার কুফল

করোনাভীতি আমাদের আগের চেয়ে অনেক বেশি স্বাস্থ্য-সচেতন করেছে। ইমিউনিটির গুরুত্ব মানুষ বুঝেছেন। কিন্তু ইমিউনিটিকে কেন্দ্র করে কিছু ভুল ধারণা আমাদের মধ্যে এসে পড়েছে। ইমিউনিটি বেশি হলে করোনা হবে না এই বিশ্বাস থেকে অনেকেই চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ভিটামিন খেয়ে যাচ্ছেন।

ভিটামিনের রকমফের : ভিটামিন দু’ধরনের- ফ্যাট সলিউবল এবং ওয়াটার সলিউবল ভিটামিন। দ্বিতীয় ভিটামিনটি অতিরিক্ত খেলে তেমন সমস্যা হয় না। কারণ অতিরিক্ত ভিটামিন প্রস্রাবের সঙ্গে বেরিয়ে যায়। সমস্যা তৈরি করে ফ্যাট সলিউবল ভিটামিন। আমাদের শরীর থেকে ফ্যাট বেরোনোর কোনও প্রক্রিয়া নেই। তাই অতিরিক্ত ফ্যাট সলিউবল ভিটামিন শরীরের বিভিন্ন অংশে জমে গিয়ে অন্যান্য রোগ ডেকে আনে।

অতিরিক্তের কুফল : শুধু করোনার সময় না অনেক নারীরাই সন্তানধারণ বা মেনোপজের পরে শরীরে ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন হয়, এই ধারণা থেকে অনেকে ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়াম খেয়ে থাকেন। শরীরে ক্যালসিয়াম অ্যাবজর্ব করার কাজ করে ভিটামিন ডি। অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম রক্তে মিশতে না পেরে জমা হয়ে যায়। পরে  হিতে বিপরীত হতে পারে। অতিরিক্ত ভিটামিন ডি শরীরের জন্য টক্সিক।

ভুল ধারণা : ইমিউনিটি বাড়ানোর জন্য আদা, কাঁচা হলুদ খেয়ে থাকেন অনেকে। আমাদের শরীরের জন্য ৫ গ্রাম আদা এবং ৩ গ্রাম হলুদের বেশি প্রয়োজন নেই, যা রোজকার রান্না থেকেই পেয়ে থাকি। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে শরীরের চাহিদা বুঝে ভিটামিন খেতে হবে। সাপ্লিমেন্টস না নিয়ে রোজকার খাবারের মধ্য দিয়ে ভিটামিনের চাহিদা মেটানোই সবচেয়ে ভাল উপায়। সূত্র: আনন্দবাজার

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 533 People

সম্পর্কিত পোস্ট