চট্টগ্রাম সোমবার, ১৭ মে, ২০২১

সর্বশেষ:

১ মে, ২০২১ | ৪:০২ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

প্রচুর শক্তির আধার খেজুর

শরীরে প্রয়োজনীয় ভিটামিনেরও জোগান দেওয়া ও ক্লান্তি দূর করার জন্য খেজুরের জুড়ি নেই। সকালে খালি পেটে খেজুর দারুণ উপকারী মানব শরীরে জন্য। খেজুরে আছে প্রচুর শক্তি, এমিনো এসিড, শর্করা ভিটামিন ও মিনারেল। প্রতিদিন রোজায় রাখার কারণে দীর্ঘ সময় খালি পেটে থাকতে হয়। যার কারণে মানব দেহে প্রচুর গ্লকোজের ঘাটতি দেখা দেয়।

তখন এই খেজুর মানব শরীরে প্রয়োজনীয় গ্লুকোজের ঘাটতি যোগান দিতে সাহায্য করে। খেজুরে কোন কোলেস্টেরল বা বাড়তি পরিমাণে চর্বি থাকে না। যার ফলে যেকোনো সময়ই খেজুর খাওয়া যায়। শরীরের জন্য অত্যাবশ্যকীয় একটি প্রয়োজনীয়  উপাদান হলো প্রোটিন। খেজুর হল প্রোটিন সমৃদ্ধ। ফলে শরীরের পেশী গঠন করতে সহায়তা করে এবং শরীরের জন্য খুব অপরিহার্য প্রোটিন সরবরাহ করে খেজুর। খেজুরে রয়েছে শরীরের জন্য অত্যাবশ্যক বি-১, বি-২, বি-৩ এবং বি-৫। এছাড়াও ভিটামিন এ-১ এবং সি পাওয়া যায়

খেজুর। খেজুরে দৃষ্টি শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে রাতকানা রোগ প্রতিরোধেও খেজুর অত্যন্ত কার্যকর। আয়রন মানব দেহের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। খেজুর প্রচুর আয়রন রয়েছে। ফলে এটা হৃৎপি-ের কার্যক্ষমতা বাড়ায়। তাই যাদের দুর্বল হৃৎপি-, তাদের জন্য খেজুর হতে পারে সবচেয়ে নিরাপদ ওষধ। ক্যালসিয়াম হাড় গঠনে সহায়ক। আর খেজুরে আছে প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম। যা হাড়কে মজবুত করে। খেজুর শিশুদের মাড়ি শক্ত করতে সাহায্য করে।

খেজুর পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ এবং প্রাকৃতিক আঁশে পূর্ণ। এক গবেষণায় দেখা যায়, খেজুর পেটের ক্যানসার প্রতিরোধ করে। আর যারা নিয়মিত খেজুর খান তাদের বেলায় ক্যানসারে ঝুঁঁকিটাও কম থাকে। খুব সম্প্রতি একটি গবেষণায় উঠে এসেছে যে খেজুর ক্যান্সার রোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করে এবং অবাক করা বিষয় হচ্ছে এটি অনেক সময় ওষুধের চেয়েও ভাল কাজ করে।

মাত্র কয়েকটা খেজুর কমিয়ে দেয় ক্ষধার জ্বালা। এবং পাকস্থলীকে কম খাবার গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করে। এই কয়েকটা খেজুরই কিন্তু শরীরের প্রয়োজনীয় শর্করার ঘাটতি পূরণ করে দেয়।  খেজুরে আছে এমন সব পুষ্টিগুণ যা খাদ্য পরিপাকে সাহায্য করে ও কোষ্ঠকাঠিন্য রোধ করে। ডায়রিয়ার জন্যেও এটা অনেক উপকারী। যকৃতের সংক্রমণে খেজুর উপকারী। এছাড়া গলা ব্যথা, বিভিন্ন ধরনের জ্বর, সর্দি, এবং ঠাণ্ডায়  খেজুর উপকারী।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 320 People

সম্পর্কিত পোস্ট