চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১

সর্বশেষ:

১৭ এপ্রিল, ২০২১ | ৪:৫০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

প্রাকৃতিক এনটিসেপটিক লেবু

পুষ্টি উপাদানে ভরপুর লেবু। শরীরকে বিভিন্ন ক্যান্সারের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সাহায্য করে। লেবুর রস প্রাকৃতিক এনটিসেপটিক। এটি শরীরের ভেতর-বাইরের ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ ধ্বংস করতে সাহায্য করে। প্রাত্যহিক জীবনে লেবু কম বেশি সকলেই খেয়ে থাকে। খাবারের স্বাদ বাড়াতে এটি ব্যবহার করা হয়। আবার অনেকে এটির আচার তৈরি করেও খেয়ে থাকেন। লেবু আকারে ছোট ফল হলেও এর উপকারিতা অনেক ও পুষ্টিগুণে ভরপুর।

 

এছাড়াও বর্তমান পরিস্থিতিতে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় লেবু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লেবুতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন-সি রয়েছে। যা এ ভাইরাস প্রতিরোধে ভালো কাজ করে। লেবু শ্বাসকষ্ট দুর করতে সাহায্য করে। তাই যাদের শ্বাসকষ্ট আছে তারা প্রতিদিন লেবু খেলে শ্বাসকষ্ট দূর হয়ে যাবে। লেবু শরীরে বিভিন্ন ক্যান্সারের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সাহায্য করে। নিয়মিত লেবু খাদ্যতালিকায় রাখলে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে। লেবু পাকস্থলীকে সুস্থ রাখে। যারা পেটের গোলযোগে ভুগছেন তাদের জন্য লেবু আদর্শ টনিক। পেটের গোলযোগের মধ্যে ডায়রিয়া, বদহজম, কোষ্টকাঠিন্য হয়ে। শুরুতে এক গ্লাস লেবু-লবণ পানি এ যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেবে।

 

লেবুর সঙ্গে এক চা চামচ মধু হলে আরো ভাল। লেবু ফুসফুসের যত্ন নেয় এবং শরীর থেকে বিষাক্ত দ্রব্য বের করে দেয়। শরীরের চর্বি ও লিপিডের মাত্রা কম রাখে। লেবুর উচ্চ ভিটামিন যা শরীরের রোগ প্রতিরোধী ক্ষমতা বৃদ্ধি করে যে কোন ভাইরাসজনিত ইনফেকশন যেমন ঠান্ডা, সর্দি, জ্বর দমনে লেবু খুব কার্যকরী। মুত্রনালীর ক্ষত সারাতেও লেবুর বেশ গুরুত্বপূর্ণ। যারা খাবারে যথেষ্ট পটাশিয়াম গ্রহণ করে না, তারা সহজেই নান রকম হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে। লেবুর রসে যথেষ্ট পরিমাণ পটাশিয়াম রয়েছে যা হাইপার টেনশন কমাতে সাহয্য করে। ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে। মধুর সাথে লেবুর রস মিশিয়ে ব্যবহার করলে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়।

 

এটি ত্বকের সংকোচন সৃষ্টিকারী পদার্থকে নিয়ন্ত্রণ রাখে। চামড়ার অতিরিক্ত তেল অপসারণ করে। ব্রণ সারিয়ে ত্বকের রং উজ্জ্বল করে। বয়সের বলিরেখা দূর করে। মাড়ির ব্যথা, দাঁতের সমস্যা, মুখের দুর্গন্ধ দূর করে। লেবুর পানি খাবার পর দাঁত ব্রাশ করার প্রয়োজন নেই। গর্ভবতী নারীদের জন্য খুবই ভালো লেবুজল। এটা শুধু গর্ভবতীর শরীরই ভালো রাখে না বরং গর্ভের শিশুর অনেক বেশি উপকার করে। লেবুর ভিটামিন-সি ও পটাশিয়াম শিশুর হাড়, মস্তিষ্ক ও দেহের কোষ গঠনে সহায়তা করে। যারা মাইল্ড এজমায় ভুগছেন, লেবুর রস তাদের জন্য ওষুধের বিকল্প হিসেবেই কাজ করবে।

পূর্বকোণ/মামুন

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 267 People

সম্পর্কিত পোস্ট