চট্টগ্রাম সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৩ নভেম্বর, ২০১৯ | ৮:০৯ অপরাহ্ন

অনলাইন ডেস্ক

তৈরি হচ্ছে ২৪ হাজার নতুন উদ্যোক্তা

বিনিয়োগ বাড়ানো ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে দেশে ২৪ হাজার নতুন উদ্যোক্তা তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। নতুন উদ্যোক্তাদের বাছাই করে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। এ লক্ষ্যে একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে এটি বাস্তবায়িত হবে। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত এক বৈঠকের কার্যবিবরণী সূত্রে পাওয়া গেছে এসব তথ্য।

জানা গেছে, এ প্রকল্পের আওতায় প্রত্যেক জেলায় একটি করে মোট ৬৭টি প্রশিক্ষণ সেন্টার থাকবে। সেখানে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। এ জন্য ৬৪ জন প্রশিক্ষক জেলা পর্যায়ে কাজ করবেন। এরই মধ্যে তাদের মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। এ প্রশিক্ষণের সেন্টারের নামকরণ করা হয়েছে উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সহায়তা কেন্দ্র। ঢাকা শহরে এ কার্যক্রম চালু করতে চারটি ভাগে ভাগ করা হবে। বর্তমান সরকার দক্ষতা উন্নয়নের ওপর জোর দিচ্ছে বেশি। এ উদ্যোগ প্রসঙ্গে সরকারের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের এক কর্মকর্তা জানান, দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার জন্য দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে হবে। আজকের দিনের নতুন উদ্যোক্তারা আগামী দিনের বড় উদ্যোক্তা হবে। নতুন নতুন উদ্যোক্তা তৈরি করতে হবে। এজন্য সরকারের বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান কাজ করছে। তথ্যসূত্র : যুগান্তর।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশের তালিকায় আসবে বাংলাদেশ। সেখান থেকে এসডিজি বাস্তবায়ন করা হবে ২০৩০ সালে। এরপর ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ। এরপর ২০৭১ সালে বাংলাদেশের শত বছর। ২১০০ সালের জন্য ডেল্টা প্ল্যান। এই স্বপ্ন পূরণের অংশ হিসেবে এ উদ্যোক্তা তৈরি। এ জন্য বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। উদ্যোক্তা তৈরি হলে বিনিয়োগ বাড়বে। বিনিয়োগ বাড়ানোর জন্য অন্যান্য খাতেও সংস্কারধর্মী উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

সূত্র মতে, সম্প্রতি প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি বৈঠক হয়েছে। সেখানে বলা হয়, এ প্রকল্প আগামী বছরের পহেলা জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ৩১ ডিসেম্বর শেষ হবে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, দেশে নতুন উদ্যোক্তা খুব বেশি তৈরি হচ্ছে না। উদ্যোক্তা তৈরিতে রয়েছে নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা। বিশেষ করে ব্যবসা করতে গেলে নতুন উদ্যোক্তাদের তথ্য পাওয়া ও প্রশিক্ষণের অভাব দেখা দেয়। এছাড়া পুঁজির জন্য ব্যাংক ঋণের স্বল্পতা একটি বড় সমস্যা। নারী উদ্যোক্তাদের ক্ষেত্রে আরও বেশি সমস্যা। সামাজিক কুসংস্কারসহ বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হয়।

ফলে দক্ষ ও মনবল থাকা সত্ত্বেও ভালো ও নতুন উদ্যোক্তা তৈরি হয় না। তবে সরকারের এ উদ্যোগের ফলে নতুন উদ্যোক্তা তৈরি হবে। বাজারে প্রতিযোগিতা সৃষ্টি হবে। এতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে বিনিয়োগ বৃদ্ধির ক্ষেত্রে। বর্তমান বিনিয়োগের খরাও কেটে যাবে। বাড়বে কর্মসংস্থান। এতে আয় বাড়ার কারণে বাড়বে মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয়। এর প্রভাবে দেশের সার্বিক অর্থনীতি চাঙ্গা হবে।

 

 

পূর্বকোণ-রাশেদ

The Post Viewed By: 105 People

সম্পর্কিত পোস্ট