চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১

সর্বশেষ:

৮ জানুয়ারি, ২০২১ | ৫:৪২ অপরাহ্ণ

এনবিআর’র প্রজ্ঞাপন জারি

পেঁয়াজ আমদানিতে ১০ শতাংশ শুল্কারোপ, চালে ছাড়

চালের বাজার স্বাভাবিক করতে এবং দেশী পেঁয়াজ উৎপাদনকারীদের বাঁচাতে নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। গতকাল বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) জারি করা প্রজ্ঞাপনে পেঁয়াজ আমদানিতে ৫ শতাংশ ‘রেগুলেটরি ডিউটি’ যুক্ত করা হয়েছে এবং চালের ক্ষেত্রে আমদানি শুল্ক ১০ শতাংশ কমানো হয়েছে।

এনবিআর সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, প্রজ্ঞাপন জারির ফলে এখন থেকে আমদানিকারা চালের ক্ষেত্রে মোট ২৫ শতাংশ ডিউটি পরিশোধ করে খালাস করতে পারবে। তবে চালের ক্ষেত্রে খাদ্যমন্ত্রণালয়ের অন্যূন যুগ্মসচিব পদমর্যাদার কর্মকর্তার লিখিত অনুমতি লাগবে আমদানিকারকদের। এই সুযোগ চলতি বছরের ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। এদিকে পেঁয়াজের ক্ষেত্রে কাস্টমস ডিউটি ছাড়াও অতিরিক্ত ৫ শতাংশ রেগুলেটরি ডিউটিসহ মোট ১০ শতাংশ ডিউটি পরিশোধ করে পেঁয়াজ খালাস করতে হবে আমদানিকারকদের।

প্রসঙ্গতঃ বাজারে ক্রমাগতভাবে বাড়ছে চালের দাম। চালের সরবরাহ বাড়াতে আমদানির অনুমতি দিয়েও উদ্দেশ্য সফল হয়নি। পরে আমদানি উৎসাহিত করতে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সুপারিশের ভিত্তিতে গত ২৭ ডিসেম্বর বিদ্যমান চালের আমদানি শুল্ক ৬২ দশমিক ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ করা হয়েছে।

অপরদিকে ভারত থেকে বাংলাদেশে পেঁয়াজ আসতে শুরু করায় বিপাকে পড়েছেন দেশীয় কৃষক ও ব্যবসায়ীরা। কারণ, মিশর ও তুরস্ক থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ এখন আর কেউ কিনছেন না। আমদানি করা এই পণ্যটি পঁচে যাচ্ছে। এতে ব্যবসায়ীরা লোকসানের মুখে পড়ছেন।

আবার ভারতের পেঁয়াজ আসা অব্যাহত থাকলে দেশে উৎপাদিত পেঁয়াজের দাম পড়ে যাবে। এতে দেশের কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। এমন পরিস্থিতিতে পেঁয়াজের ওপর আমদানি শুল্কারোপের অনুরোধ জানিয়ে গত ৩ জানুয়ারি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে চিঠি লেখে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের চিঠির প্রেক্ষিতে দেশে উৎপাদিত পেঁয়াজের সুরক্ষা দিতেই পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে মোট ১০ শতাংশ শুল্কারোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।

 

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 456 People