চট্টগ্রাম রবিবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২১

৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ | ১২:৪২ অপরাহ্ণ

আল-আমিন সিকদার 

অধরাই থাকল লক্ষ্যমাত্রা

রিটার্ন দাখিলের পাশাপাশি আয়কর জমা নিতে প্রতিবছর আয়কর মেলার আয়োজন করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। মহামারী করোনা এনবিআরের বাৎসরিক এ আয়োজনে এবার বাধা হয়ে দাঁড়ায়। পরিস্থিতি মোকাবেলায় কর অঞ্চলগুলো নিজ অফিসে মেলার আদলে গ্রহণ করে রিটার্ন জমাদান কার্যক্রম। নভেম্বর মাসে মাসব্যাপী মেলার আদলে রিটার্ন দাখিলের বিপরীতে জমা নেয়া হয় আয়কর। তবে লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না হওয়ায় এবং করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে সময় বাড়ানো হয় আরও একমাস। এতেও লাভ হয়নি। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ১৫শ কোটি টাকা আদায় কম হয়েছে।

এনবিআরের তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের (২০২০-২০২১) ডিসেম্বর পর্যন্ত (৬ মাসে) চট্টগ্রামের ৪ কর অঞ্চলে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ৫ হাজার ৯৫০ কোটি টাকা। তবে ডিসেম্বর পর্যন্ত আয়কর আদায় হয়েছে ৪ হাজার ৫০২ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। রিটার্ন জমা পড়েছে ১ লাখ ৯৯ হাজার ৯২৭টি। যার বিপরীতে আদায় হয়েছে ৩০১ কোটি ৭৬ লাখ টাকা।

শুধু তাই নয়, সময় বাড়িয়েও এনবিআরের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন আয়কর বিভাগের কর্মকর্তারা। চট্টগ্রামের কর অঞ্চলগুলোর ডিসেম্বর মাসে জমা পড়া রিটার্ন সংখ্যা তারই সাক্ষী দিচ্ছে। যেখানে নভেম্বর মাসে অর্ধলাখের অধিক রিটার্ন জমা পড়েছে একটি অঞ্চলে সেখানে শেষ মাস অর্থাৎ ডিসেম্বর মাসে জমা পড়েছে মাত্র এক হাজার রিটার্ন।

২ শতাংশ লেট ফি দিয়ে আগামী এপ্রিল মাস পর্যন্ত রিটার্ন জমা দিতে পারবেন গ্রাহকরা। এরপরেও দেয়া যাবে। তবে সেক্ষেত্রে মানতে হবে কর বিভাগ নির্ধারিত নিয়মাবলী।

আয়কর বিভাগের উধ্বর্তন এক কর্মকর্তা পূর্বকোণকে বলেন, রিটার্ন জমা নিতে যে একমাস সময় বাড়ানো হয়েছে তাতে তেমন কোন সাড়া পড়েনি। বলতে গেলে পুরো মাসে এক হাজারের বেশি রিটার্ন জমা পড়েনি কোনো কর অঞ্চলে।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 237 People

সম্পর্কিত পোস্ট