চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১:০৬ পূর্বাহ্ণ

রাকিবুল হক

বোতল বিষাক্ত কি না জেনে নিন নম্বর দেখে

প্লাস্টিক ছাড়া আমরা জীবন ভাবতেই পারি না। ঘুম থেকে ওঠা থেকে রাতে শুতে যাওয়া- সারাদিন আমরা

নানারকমভাবে প্লাস্টিকের সংস্পর্শে আসি। তার কোনোটা ভীষণভাবে ক্ষতিকারক, কোনোটা কম। কোনোটা আবার নিরাপদ।
(গত সংখ্যার পর)
নম্বর ৪: উপাদান লো ডেনসিটি পলিইথিলিন। সাধারণত এগুলো নিরাপদ এবং পুনর্ব্যবহারযোগ্যও। অর্থাৎ একবারের বেশি ব্যবহার করা যেতেই পারে।
নম্বর ৫: ওষুধের বোতল, কেচআপের বোতল বা সিরাপের বোতল যেগুলো পলিপ্রোপাইলিন দিয়ে তৈরি, তার গায়ে নম্বর ৫ লেখা থাকে। এগুলো সুরক্ষিত এবং পুনর্ব্যবহারযোগ্য।
নম্বর ৬: পলিস্টাইরিন বা স্টাইরোফোম দিয়ে তৈরি প্লাস্টিকের দ্রব্যে নম্বর ৬ লেখা থাকে। এই বোতল থেকে ক্ষতিকারক স্টাইরিন নির্গত হয়। যা থেকে ক্যানসার পর্যন্ত হতে পারে। তাই ৬ নম্বর লেখা প্লাস্টিকের দ্রব্য ব্যবহার বন্ধু করা উচিত।
নম্বর ৭: আইপড, কম্পিউটার, খাবারের কন্টেনার, বাচ্চাদের ফিডিং বোতল যে উপাদান দিয়ে তৈরি সেগুলো নম্বর ৭-এর ক্যাটেগরিতে পড়ে। এগুলো সাধারণত ক্ষতিকারক বিসফেনল এ দিয়ে তৈরি। যা থেকে স্নায়ুর সমস্যা দেখা দেয়। বাচ্চাদের ফিডিং বোতল কেনার সময় অবশ্যই দেখে নেওয়া জরুরি তাতে কী নম্বর লেখা রয়েছে।

মনে রাখবেন ২, ৪ এবং ৫ নম্বর লেখা থাকলে সেগুলো তুলনামূলক নিরাপদ। নম্বর ১ লেখা বোতলও নিরাপদ হিসাবেই গণ্য হয়। ৬ এবং ৭ ভীষণ ভাবে ক্ষতিকর। তাই ৬ এবং ৭ লেখা নম্বরের বোতল অবশ্যই এড়িয়ে চলুন।
আরও একটি বিষয় জেনে রাখা দরকার, মাইক্রোওয়েভেবল প্লাস্টিক মানেই তা কিন্তু নিরাপদ নয়। এর অর্থ তা মাইক্রোওয়েভের তাপ সহ্য করতে সক্ষম। তা থেকে ক্ষতিকারক রাসায়নিক বেরিয়ে শরীরে বিষক্রিয়া ঘটাতেই পারে। (শেষ)
[সূত্র : আনন্দবাজার]

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 270 People

সম্পর্কিত পোস্ট