চট্টগ্রাম বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ | ১:২৩ অপরাহ্ন

অনলাইন ডেস্ক

নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন আজ

বাংলা সাহিত্যে কিংবদন্তি এক নাম ‍হুমায়ূন আহমেদ। আজ ১৩ নভেম্বর বাঙালির মননে দোলা জোগানো এই কিংবদন্তীর ৭১তম জন্মবার্ষিকী। তাঁর জন্মদিনকে ঘিরে ভক্ত-অনুরাগীরা ভাসছেন স্মৃতির সাগরে। প্রিয় লেখকের নানা উক্তি, ছবি পোস্ট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন তারা। এ ছাড়া বেশকিছু টিভি চ্যানেলে প্রচার হবে নানারকম অনুষ্ঠান।

সাহিত্যাঙ্গনে কিংবদন্তি এক নাম। পাঠক মুগ্ধ করার জাদুকর তিনি। নাটক ও চলচ্চিত্র নির্মাণেও সফল, ভিন্ন এক ধারার প্রবর্তক। গান লেখাতেও হয়ে আছেন কালজয়ী গীতিকবি। তিনি হুমায়ূন আহমেদ। সবার প্রিয় হুমায়ূন স্যার।

জন্মদিন উপলক্ষে হুমায়ূন আহমেদের পরিবারের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে কিছু উদ্যোগ। লেখকের নিজের হাতে গড়া নুহাশ পল্লীতে তার সমাধিস্থলে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হবে।

১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুরে নন্দিত এই সাহিত্যিকের জন্ম। তাঁর বাবা ফয়জুর রহমান আহমদ এবং মা আয়েশা আখতার খাতুন। হুমায়ূন আহমেদ তাঁর কীর্তি রেখেছেন শিল্প-সাহিত্যর বেশিরভাগ শাখাতেই।

বাংলা সাহিত্য, নাটক, চলচ্চিত্র ও গান পালাবদলের এ কারিগর ১৯৭২ সালে প্রকাশিত প্রথম উপন্যাস ‘নন্দিত নরকে’ দিয়ে নিজের জানান দেন। এরপর তিন শতাধিক গ্রন্থ লিখেছেন। আগুনের পরশমনি ছবির দৃশ্যে আসাদুজ্জামান নূর ও শীলা টেলিভিশন নাটকেও চমক দেখিয়েছেন তিনি। বদলে দেন নির্মাণের বাঁক।

তাঁর নতুন উপন্যাস মানেই ছিলো বিক্রির তালিকায় সেরার অবস্থানে। হিমুবিষয়ক বই মানেই পাঠকের হুমড়ি খেয়ে পড়ার মতো অবস্থা। মিসির আলী ছিলো তার সৃষ্ট আরেকটি জনপ্রিয় চরিত্র।

‘কোথাও কেউ নেই’, ‘এইসব দিনরাত্রি’, ‘কবি’, ‘বাদশা নামদার’ ইত্যাদি কতো কতো উপন্যাস, যা পাঠকদের মনকে ছুঁয়ে গেছে।

১৯৯০-এর গোড়ার দিকে চলচ্চিত্র নির্মাণ শুরু করেন। তার পরিচালনায় প্রথম চলচ্চিত্র ‘আগুনের পরশমণি’ মুক্তি পায় ১৯৯৪ সালে। ২০০০ সালে ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ ও ২০০১ সালে ‘দুই দুয়ারী’ দর্শকের কাছে দারুণ গ্রহণযোগ্যতা পায়। ২০০৩-এ নির্মাণ করেন ‘চন্দ্রকথা’।

১৯৭১-এ বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে ২০০৪ সালে নির্মাণ করেন ‘শ্যামল ছায়া’ সিনেমাটি। এটি ২০০৬ সালে ‘সেরা বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র’ বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের জন্য বাংলাদেশ থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিল। এ ছাড়াও এটি কয়েকটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। এরপর ২০০৬ সালে মুক্তি পায় ‘৯ নম্বর বিপদ সংকেত’। ২০০৮-এ ‘আমার আছে জল’ চলচ্চিত্রটি তিনি পরিচালনা করেন।

২০১২ সালে তার পরিচালনার সর্বশেষ ছবি ‘ঘেটুপুত্র কমলা’ মুক্তি পায়। নিজের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ একুশে পদক, বাংলা একাডেমি পুরস্কার, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ দেশে-বিদেশে বিভিন্ন পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন।

তবে হুমায়ূন আহমেদ সর্বজন প্রিয় হয়ে আছেন হিমু ও মিসির আলী চরিত্রের স্রষ্টা হিসেবে। এ ছাড়াও তাঁকে বলা হয় তারকা গড়ার কারিগর। তাঁর হাত ধরে অনেক অভিনয় ও সঙ্গীতশিল্পীরা জনপ্রিয়তা পেয়েছেন।

হুমায়ূন আহমেদের বাবা ফয়জুর রহমান আহমেদ ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা ও মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযুদ্ধে তিনি পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও দোসরদের হাতে শহীদ হন। মায়ের নাম আয়েশা ফয়েজ। তাঁর দুই ভাই মুহাম্মদ জাফর ইকবাল ও আহসান হাবীব। প্রত্যেককেই লেখালেখিতে পাওয়া গেছে।

নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ স্যারের ৭১তম জন্মদিন উপলক্ষে সারাদেশে বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে দিনটি পালন করবে। সারাদেশের কার্যক্রমে যা থাকছেঃ

★হিমু পরিবহণ চট্টগ্রামঃ দেয়ালিকা, ফানুশ উড়ানো, এবং ক্যান্সার সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ।

★ঢাকাঃ *১ম পর্বঃ প্রিয় লেখককে শ্রদ্ধা জানাতে সকাল ৬টায় কার্জন হল থেকে নুহাশপল্লীর উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবে হিমু পরিবহণের প্রতিনিধি দল। যাত্রাপথে ক্যান্সার সচেতনতামূলক প্রচারণা ও লিফলেট বিতরণ করবে।
*২য় পর্বঃ বিকেল ৪টায় টিএসসি মিলনায়তনে “নতুন পাঠের আলোয় হুমায়ূন আহমেদ” শীর্ষক বৈঠকি আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, এবং হুমায়ূন আহমেদ স্যারের সবগুলো বইয়ের প্রচ্ছদ প্রদর্শনী করা হবে ।

★হিমু পরিবহণ নরসিংদীঃ
আলোচনা সভা, পথশিশুদের সাথে জন্মদিন উদযাপন, এবং ৭১তম জন্মদিন উপলক্ষে ৭১টি ফানুশ উড়াবে (১৫নভেম্বর)

★হিমু পরিবহণ ঝিকরগাছা (যশোর)ঃ অনলাইন বুক রিভিউ প্রতিযোগিতা

★হিমু পরিবহণ পাবনাঃ লেখকের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে পবিত্র কোরআন খতম ও দোয়া, হুমায়ূন আহমেদ স্মরণসভা, কেক কাটা, ক্যান্সার সচেতনতামূলক র‍্যালী এবং লিফলেট বিতরণ।

★হিমু পরিবহণ কিশোরগঞ্জঃ প্রিয় লেখককে স্মরণ করে পাঠকের শুভেচ্ছাবার্তা এবং প্রচ্ছদ প্রদর্শনী

★হিমু পরিবহণ গাজীপুরঃ মিলাদ মাহফিল ও ৪টি স্কুলে ক্যান্সার সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন

★হিমু পরিবহণ, লক্ষ্মীপুরঃ অন্ধ কল্যাণ মাদ্রাসায় দুপুরের খাবার বিতরণ, দোয়া মাহফিল এবং ক্যান্সার সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ।

★হিমু পরিবহণ, শেরপুরঃ কবিতায় হুমায়ূন আহমেদ, উন্মুক্ত পাঠচক্রঃ হিমু সমগ্র, ক্যান্সার সচেতনতামূলক আলোচনা, কেক কেটে এবং ফানুশ উড়িয়ে হুমায়ূন জন্মোৎসব উদযাপন।

★হিমু পরিবহণ, ময়মসিংহঃ দোয়া মাহফিল ও ক্যান্সার সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ।

★হিমু পরিবহণ, বগুড়াঃ ৭১এ হাসিমুখঃ সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের স্কুল “আলোর দিশারী”র শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবার বিতরণ।

★হিমু পরিবহণ, রাজনগরঃ জে এসি পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা সামগ্রী বিতরন, কেক কাটা, ক্যান্সার সচতেনতায় সেমিনার

★হিমু পরিবহণ, নবিগঞ্জঃ হুমায়ূন আহমেদ স্মরণে আলোচনা এবং ক্যান্সার সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ

★হিমু পরিবহণ, কুলাউড়াঃ হুমায়ূন আহমেদ স্মরণে আলোচনা ও কেক কাটা

★হিমু পরিবহণ, সিলেটঃ *প্রথম দিনঃ এতিমখানায় মিলাদ মাহফিল, কেক কাটা ও ক্যান্সার সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ।
*২য় দিনঃ হুমায়ূন সাহিত্য নিয়ে আলোচনা

★হিমু পরিবহণ, ঝিনাঈদহঃ হুমায়ূন আহমদে স্মরণে আলোচনা ও ক্যান্সার সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ

★হিমু পরিবহণ কুষ্টিয়াঃ একটি স্কুলে হুমায়ূন আহমদে স্মরণে আলোচনা এবং ক্যান্সার সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন এবং কেক কেটে হুমায়ূন জন্মোৎসব উদযাপন।

★হিমু পরিবহণ, ভৈরবঃ রচনা প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভা (১৫নভেম্বর)

★হিমু পরিবহণ, খুলনাঃ কেক কেটে জন্মোৎসব উদযাপন, আবৃত্তি পরিবেশনা, মোমবাতি প্রজ্জলন, ক্যান্সার সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ এবং পথশিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ।

★হিমু পরিবহণ, ফরিদপুরঃ হুমায়ূন আহমেদ স্মরণে আলোচনা, আবৃত্তি, কুইজ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও কেক কেটে হুমায়ূন জন্মোৎসব উদযাপন।

★হিমু পরিবহণ, কুমিল্লাঃ ৭১টি প্রদীপ প্রজ্জলন

পূর্বকোণ/পিআর

The Post Viewed By: 78 People

সম্পর্কিত পোস্ট