চট্টগ্রাম বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯

২০ অক্টোবর, ২০১৯ | ৯:৪৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

শিল্পকলায় বরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী কামরুল হাসান মঞ্জু স্মরণ

সম্মিলিত আবৃত্তি জোট চট্টগ্রামের আয়োজনে বরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী কামরুল হাসান মঞ্জু স্মরণসন্ধ্যা আজ নগরীর জেলা শিল্পকলা একাডেমীর আর্ট গ্যালারী হলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্মৃতিচারণা ও কবিতায় শিল্পীর বর্ণাঢ্য সংস্কৃতির পরিসরের ব্যপ্তি তুলে ধরা হয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন একুশে ও বাংলা একাডেমী পদকপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ ও সাহিত্যিক ড. হরিশংকর জলদাস।

তিনি বলেন, কবিরা সারাংশ লিখেন তাদের কবিতায়। একজন আবৃত্তিশিল্পী সে সারাংশ কণ্ঠে দৃশ্যায়ন করেন। যেখানে জীবনের বিভিন্ন প্রেক্ষাপট উঠে আসে। সে প্রেক্ষাপট তুলে ধরতে আবৃত্তি সংগঠন ও ব্যক্তি সে লক্ষ্যে কাজ করছে। এ মাধ্যমে মানুষ তা নিরবচ্ছিন্নভাবে করে যাচ্ছে। যেখানে প্রচারবিমুখ কামরুল হাসান মঞ্জু নেপথ্যে থেকে কাজ করেছে। তিনি চতুর্মাত্রিক একজন ব্যক্তিত্ব। তিনি সংগঠক ছিলেন, এবং সংগঠক তৈরি করতেন। তিনি আরো বলেন, এখানে অবহেলিত মাধ্যম আবৃত্তিশিল্পকে নিয়ে কাজ করছে সম্মিলিত আবৃত্তি জোট।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা (উপ-সচিব) সুমন বড়ুয়া, কবি ও গল্পকার জিন্নাহ চৌধুরী এবং বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের যুগ্ম-সম্পাদক রাশেদ হাসান। স্মরণ সন্ধ্যার শুরুতে সম্মিলিত আবৃত্তি জোট চট্টগ্রাম এর সভাপতি হাসান জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জোটের সাধারণ সম্পাদক মশরুর হোসেন ও স্বপন কুমার দাশ। এ স্মরণ সন্ধ্যার আহবায়ক ও সম্মিলিত আবৃত্তি জোটের যুগ্ম-সম্পাদক আবৃত্তিশিল্পী দেবাশীষ রুদ্রের সঞ্চালনায়
একক আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী দিলরুবা খানম, গৌতম চৌধুরী, মো: সেলিম ভুইঁয়া, আখেরুন নেছা দিনা, শেখ ফাইরুজ নওয়াল দুর্দানা, আহমেদ সাব্বির, মুমতাহিনা তাবাসসুম মালিহা, অনিক মহাজন, মুহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেন, দীপা শীল। এছাড়া বৃন্দ পরিবেশায় বিশ্বভরা প্রাণ চট্টগ্রামের ইকবাল ইবনে মালেক, অনামিকা দাস।

অনুষ্ঠানে জোটভুক্ত সংগঠনগুলো হলো- বোধন আবৃত্তি পরিষদ চট্টগ্রাম, মুক্তধ্বনি আবৃত্তি সংসদ, শব্দনোঙর আবৃত্তি সংগঠন, ত্রিতরঙ্গ আবৃত্তি দল, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা, স্পৃহা আবৃত্তি নীড়, স্বদেশ আবৃত্তি সংগঠন, আবৃত্তি পাঠশালা-কিডস কালচারাল ইন্সটিটিউট, উত্তরায়ণ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়,
ঐতিহ্য সাংস্কৃতিক স্কোয়াড-আবৃত্তি বিভাগ, কণ্ঠশৈলী -সাদার্ন ইউনিভার্সিটি, ছায়াতরু চারুকলা ও আবৃত্তি অনুশীলন কেন্দ্র, বিশ্বভরা প্রাণ চট্টগ্রাম ও সরগম একাডেমী।
প্রসঙ্গত, শিল্পী কামরুল হাসান মঞ্জু ১৯৫৬ সালের ১৬ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন।

প্রয়াণ ২০১৯ সালের ২১সেপ্টেম্বর) তিনি বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সম্পৃক্ততায় এ শিল্পে অবদান রেখেছেন। তিনি আবৃত্তিশিল্পী, সংগঠক হলেও গণমাধ্যম ও উন্নয়নযোগাযোগ ব্যক্তিত্ব হিসেবে পরিচিতি রয়েছে। এছাড়া সাংগঠনিক চর্চায়ও তিনি পুরোধা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এবং তিনি দীর্ঘদিন মানব উন্নয়নের বিভিন্ন কর্মকান্ডে যুক্ত থাকলেও পাশাপাশি মানবাধিকার, উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের প্রেক্ষাপটে গ্রামভিত্তিক সাংবাদিকতা চর্চা গড়ে তুলতে চেষ্টা করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর পাস করেন।
তিনি ২০১৯ সালের ২১ সেপ্টেম্বর মৃত্যুবরণ করেন।
বর্ণাঢ্য এ শিল্পীর জীবনের বার্তা অবিপনেয় এ মাধ্যমে সংস্কৃতিপ্রেমীদের কবিতায় ও আলোচনায় উঠে আসে। বিশেষ চিন্তাশীল ও সৃজনশীল এ শিল্পমান ব্যক্তির
স্মরণসন্ধ্যায় এ জোটভুক্ত ছাড়াও আমন্ত্রিত আবৃত্তি সংগঠন তাঁর কর্মময় শিল্পমুখর জীবনকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের অাছারুল হক, কণ্ঠনীড় বাচিক শিল্পচর্চা কেন্দ্রের আবৃত্তিশিল্পী সেলিম রেজা সাগর, চট্টগ্রাম আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের ফারুক আজম সোহেল, নির্মাণ আবৃত্তি অঙ্গনের মাহফুজুর রহমান মাহফুজ, নরেন আবৃত্তি একাডেমীর মিশফাক রাসেল, বর্ণ আবৃত্তি সংগঠনের সাইদুল করিম সাজু ও সুচয়ন ললিতাকলা কেন্দ্রের তাসকিয়াতুন নূর তানিয়া কবিতা পরিবেশনার মধ্য দিয়ে তাঁর সংস্কৃতিময় জীবন স্মরণে আনেন। আজীবন শিল্পচর্চায় নিবেদিত এ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বের পদচারণায় মুখর করে ছিলো গ্রন্থনায়-দলছুট কবিতার কঙ্কাল, পাঠশালা-বৃত্তের ওপারে ঝুমকো ফুল, স্মরিত- আমরা অনার্য আমরা দ্রাবিড়। আবৃত্তির এ্যালবাম- আমরা আবহমান ধ্বংস বা নির্মাণে, চির প্রণাম অগ্নি, কালো কবিতার কোলাজ, প্রসূনের জন্য প্রার্থনা প্রভৃতি। এছাড়া এখনো মনে বাজে তাঁর একক আবৃত্তিসন্ধ্যা মেঘের ভেতর আত্মগোপন।
পূর্বকোণ/পিঅার

The Post Viewed By: 167 People

সম্পর্কিত পোস্ট