চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২

১৭ অক্টোবর, ২০২২ | ২:০৩ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

ইরানে পোশাক বিপ্লব : চুল কেটে প্রতিবাদে উর্বশী

ক্রমশ জোরালো হচ্ছে ইরানের পোশাক বিপ্লব। আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও দেশটির নারীদের পক্ষে সমর্থন তৈরি হচ্ছে। বিভিন্ন দেশের তারকারা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদের আওয়াজ তুলছেন। এবার প্রতিবাদে সামিল বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও ফ্যাশন তারকা উর্বশী রাউতেলা। নিজের চুল কেটে তিনি অংশ নিয়েছেন এই বিপ্লবে। রবিবার (১৬ অক্টোবর) এ বিষয়ে ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্ট দিয়েছেন অভিনেত্রী।।

সেখানে দেখা যায়, উর্বশীর চুল কাটছেন এক ব্যক্তি। তবে চুল কাটার পরবর্তী সময়ের কোনও ছবি যুক্ত করেননি অভিনেত্রী। ক্যাপশনে দিয়েছেন জ্বালাময়ী বক্তব্য। তিনি জানান, ইরানে যারা পোশাক স্বাধীনতার জন্য আন্দোলন করছেন এবং কিছুদিন আগে ভারতের উত্তরাখণ্ডে খুন হওয়া অঙ্কিতা ভান্ডারির জন্য তার এই প্রতিবাদ।

উর্বশী বলেছেন, ‘ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারের পর মৃত্যুবরণ করা মাহসা আমিনির জন্য যারা প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে মারা গেছেন, তাদের এবং পৃথিবীর সমস্ত নারীর সমর্থনে আমি আমার চুল কেটে ফেলছি; এবং উত্তরাখণ্ডের ১৯ বছর বয়সী তরুণী অঙ্কিতা ভান্ডারির জন্যও। ইরান সরকারের বিরুদ্ধে বিশ্বজুড়ে নারীরা তাদের চুল কেটে প্রতিবাদে সামিল হচ্ছেন। নারীদের সম্মান করো।’

এই প্রতিবাদকে নারী জাগরণের বৈশ্বিক প্রতীক বলে মনে করছেন উর্বশী। তার ভাষ্য, ‘চুলকে নারীর সৌন্দর্যের প্রতীক হিসেবে দেখা হয়। প্রকাশ্যে সেই চুল কেটে ফেলার মাধ্যমে নারীরা বুঝিয়ে দিচ্ছে, সমাজের কথিত সৌন্দর্যের মানদণ্ডের পরোয়া করে না তারা; এবং কাউকে কিংবা কোনও কিছুকে তাদের পোশাক, আচরণ ও বেঁচে থাকার ওপর সিদ্ধান্ত নিতে দেবে না। এক নারীর ইস্যুকে যদি পুরো নারীজাতির ইস্যু হিসেবে বিবেচনা করে সবাই একত্রিত হয়, তাহলে নারীবাদ নতুন প্রাণশক্তি পাবে।’

উল্লেখ্য, গত সেপ্টেম্বরে মাহসা আমিনি নামের এক তরুণীকে গ্রেফতার করে ইরানের নৈতিকতা পুলিশ। যাদের কাজ নারীদের ধর্মীয় অনুশাসন অনুযায়ী পোশাক-আচরণ নিশ্চিত করা। তাদের অমানবিক নির্যাতনের শিকার হন মাহসা। তিনদিনের মাথায় হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। এরপরই প্রতিবাদের আগুন জ্বলে ওঠে। ইরানের গণ্ডি ছাড়িয়ে সেই আগুনের তাপ বিভিন্ন দেশে পৌঁছে যাচ্ছে।

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট