চট্টগ্রাম বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১

সর্বশেষ:

২১ জুন, ২০২১ | ১:৩৩ অপরাহ্ণ

মরিয়ম জাহান মুন্নী

কেউ আর এখন আঞ্চলিকতার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে চান না

চট্টগ্রামে আগের মত সাংস্কৃতিক চর্চা হয় না। আঞ্চলিক গানের জন্য এখন কোনো পৃষ্ঠপোষকতা নেই। যে কারণে আঞ্চলিক গান হারিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বায়নের যুগে প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে এখন আমরা নিজেদের পরিচয়ই হারিয়ে ফেলছি।
বিশ্ব সংগীত দিবস উপলক্ষে দৈনিক পূর্বকোণের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে এই অভিমত ব্যক্ত করেন চট্টগ্রামের কৃতী সন্তান দেশের খ্যাতিমান সঙ্গীত শিল্পী, বাংলাদেশ সঙ্গীতশিল্পী এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কুমার বিশ্বজিৎ। আলাপকালে দেশের সংগীতাঙ্গন ও আঞ্চলিক গানের বর্তমান হালচাল, সংকট এবং এ থেকে উত্তরণের উপায় সম্পর্কে মতামত দেন। গুণী এই শিল্পীর সঙ্গে আলাপের উল্লেখযোগ্য অংশ প্রশ্নোত্তর আকারে নিচে দেয়া দেয়া হল-

পূর্বকোণ: বিশাল শ্রোতাগোষ্ঠী থাকার পরও আঞ্চলিক গানের খরা চলছে বলে অনেকেই অভিযোগ করছেন, কেন এই অভিযোগ?

কুমার বিশ্বজিৎ: আজকালকার ছেলে-মেয়েরা যারা সঙ্গীত জগতে আসেন তারা শুধু আঞ্চলিকতার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে চান না। তারা চান অল্পতেই তাদের গানের জগত বিস্তৃতি লাভ করুক। আগে আমরা দেখতাম অনেক লোকাল প্রোডিউসার ছিল। কিন্তু এখন আর সেটি নেই। চট্টগ্রামে আগের মত সাংস্কৃতিক চর্চাও হয় না। সেগুলো বলা চলে ‘কর্পোরেট’ গানের দিকে চলে গেছে। যে কারণে আঞ্চলিক গান হারিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বায়নের এ যুগে প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে এখন আমরা নিজেদের আইডেন্টিই হারিয়ে ফেলেছি। যা আমাদের গর্বের বিষয়গুলো থেকে সরিয়ে নিয়েছে। সবাই এখন ওয়েস্টার্ন জীবনযাপনে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে।

পূর্বকোণ: কিংবদন্তি শিল্পী শেফালী ঘোষ ও শ্যামসুন্দর বৈষ্ণবের মত শিল্পী এখন আর সৃষ্টি হয় না, কারণ কি বলে আপনার মনে হয়?

কুমার বিশ্বজিৎ: কিংবদন্তি শিল্পী শেফালী ঘোষ ও শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব হচ্ছেন ক্ষণজন্মা শিল্পী। এমন মানুষ শত বছরে দু-একজন জন্মান। শেফালী ঘোষ ও শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব খালি গায়ক না, তাদের পরিবেশনা, উপস্থাপনা ও মঞ্চে গানের সাথে যে অভিনয় ছিল তা এক কথায় অতুলনীয়। আমি বলবো তাদের মত এমন উপস্থাপন সারা বিশ্বের বড় বড় অভিনেতাদের মধ্যেও দেখিনি। এরা শুধু আঞ্চলিকতায় ছিলেন বলে শুধু আমাদের কাছেই পরিচিতি লাভ করেছে। শেফালী ঘোষ ও শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব যদি ওয়েস্টার্ন বা ইউরোপোর কোন জায়গায় জন্মগ্রহণ করতেন তাহলে এদের মমি বানিয়ে রাখা হত।

পূর্বকোণ: আঞ্চলিক গানের প্রসারে কি করা দরকার বলে আপনি মনে করেন?

কুমার বিশ্বজিৎ: শুধু চট্টগ্রামেরই নয়, দেশের প্রতিটি অঞ্চলের নিজস্ব গানগুলো আমাদের মূল সঙ্গীতের অলংকার। এটি আমাদের গৌরবের এবং মর্যাদার। কারণ একটা দেশের নিজস্ব কালচার সেই দেশের বড় পরিচিতি। স্বাধীনতা যুদ্ধ শুধু একটা ভূখ-ের জন্য হয়নি, হয়েছে আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতির রক্ষার জন্যও। সেখানে যদি আমরা আমাদের ঐতিহ্য ও নিজস্ব সংস্কৃতি হারাই তাহলে তো আমরা পরনির্ভরশীল হয়ে গেলাম।

পূর্বকোণ: করোনাকালের মধ্যে সঙ্গীতাঙ্গনের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন?

কুমার বিশ্বজিৎ: শিল্পীরাও মানুষ। তাদেরও মৌলিক চাহিদাগুলো পূরণ করতে হয়। তারপরই আসে সঙ্গীতের কথা। করোনার মধ্যে এখন মানুষের অর্থনৈতিক, শিক্ষা, চিকিৎসাসহ সকল কিছুর সমস্যা। তারপর আসে বিনোদনের কথা। আমরা যে প্রফেশনে আছি এটা বর্তমানে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। শিল্পীরা কি সৃষ্টি করবে নাকি কাল কি খাবে- সেটা ভাববে। এ মুহূর্তে সংস্কৃতিক অঙ্গনের কেউ ভালো নেই। যেহেতু আমরা গণতান্ত্রিক দেশের নাগরিক তাই সরকারকে আরো বেশি খেয়াল রাখা উচিত যাতে শিল্পীরা বাঁচে।

পূর্বকোণ: বিভিন্ন রিয়ালিটি শো’র মাধ্যমে প্রতিভা বাছাই করা হচ্ছে। কিন্তু একটা সময়ে এসে সেসব প্রতিভাবানরা কেন জানি বেশিদূর আগাতে পারে না। এমনটা হওয়ার কারণ কি হতে পারে বলে আপনি মনে করেন?

কুমার বিশ্বজিৎ: সঙ্গীত হচ্ছে সৃষ্টিশীল মাধ্যম। অন্য প্রফেশন থেকে আলাদা একটা জগত। একে যদি কেউ ব্যবসায়ীক স্বার্থে ব্যবহার করে তাহলে তো বেশিদিন টিকতে পারবে না। নিজস্ব উদ্যোগে মৌলিক গান না করলে অন্যের গান দিয়ে বেশিদূর এগিয়ে যেতে পারবে না।

পূর্বকোণ: চট্টগ্রামের সন্তান হিসেবে বলুন, চট্টগ্রাম থেকে আরো কুমার বিশ্বজিৎ, আইয়ুব বাচ্চু পেতে আমাদের কি করা উচিত?

কুমার বিশ্বজিৎ: জানি না কতদূর আসতে পেরেছি। তবে নতুন প্রজন্মের জন্য বলবো, সঙ্গীতের প্রতি অদম্য ভালোবাসা থাকতে হবে। অনেক বেশি ত্যাগ, কষ্ট, অনুশীলন করতে হবে। শুধু আমাদেরকেই নয়, পৃথিবীতে যারা বড় হয়েছে তাদের অনুশীলন করতে হবে। তাহলে আমাদের মতো না এরচেয়েও ভালো করতে পারবে।

পূর্বকোণ: পুরনো দিনের গানগুলো সব প্রজন্মের কাছে জনপ্রিয়। কিন্তু বর্তমানে রিলিজ হওয়া অধিকাংশ গান শ্রোতার মনে বেশিদিন স্থায়ী হয় না। আপনার দৃষ্টিতে প্রধান অন্তরায় কি?

কুমার বিশ্বজিৎ: বর্তমানের শিল্পীরা শ্রোতার আবেগ বুঝে না। তারা ব্যবসায়িক চিন্তা নিয়ে গান করে। যেকোনো কাজই শুধু টাকার কথা চিন্তা করে করলে সেটা বেশিদিন স্থায়ী হয় না। সঙ্গীতও তেমন।

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 241 People

সম্পর্কিত পোস্ট