চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ | ৩:৪৩ অপরাহ্ণ

আমেরিকা প্রবাসীদের প্রশ্ন

জাতিসংঘ আবরার হত্যাকাণ্ডে সরব হলেও যুক্তরাষ্ট্রের হত্যাকাণ্ডে কেন নীরব?

৪১ দিন অতিবাহিত হলেও নিউইয়র্কে বাংলাদেশি শাহেদ উদ্দিনের ঘাতকেরা গ্রেপ্তার হয়নি। ব্রুকলীনে একটি পুলিশ স্টেশনের দু’শ গজের মধ্যে বন্দুকধারির গুলিতে ৪ জন নিহত হবার ৪০ ঘন্টার মধ্যেও (১৩ অক্টোবর সন্ধ্যা) পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তারর করতে পারেনি। ৫ অক্টোবর নিউইয়র্ক সিটির চায়না টাউন রেল স্টেশনে গৃহহারা ৪ জনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ১২ অক্টোবর রাতে শিকাগোতে একটি বাসায় ৪ জনকে গুলি করে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ বছরের ৯ মে পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্কুল-কলেজে ৪ জনকে হত্যা এবং ১৭ জনকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটেছে। এর একটি নিয়েও কোন মন্তব্য বা মতামত ব্যক্ত করেনি জাতিসংঘ।

এ অবস্থায় বাংলাদেশে বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ড নিয়ে কঠোর মন্তব্য করেছে জাতিসংঘ। এ নিয়ে বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার প্রবাসীদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ১৩ অক্টোবর জাতিসংঘ মহাসচিবের মন্তব্য-মতামত বা বিবৃতি চাইলে মহাসচিবের ডেপুটি মুখপাত্র ফারহান হক জানান, নিউইয়র্কের কোন ইস্যুতে কিছু জানতে চাইলে বা মতামত নিতে হলে অনুগ্রহপূর্বক নিউইয়র্ক সিটি প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করুন।

এরপর ফারহানকে স্মরণ করিয়ে দেয়া হয় যে, নিউইয়র্ক সিটির ঘটনার জন্যে যদি সিটি প্রশাসনের মতামত নিতে হবে, তাহলে ঢাকার ছাত্রহত্যার পরিপেক্ষিতে জাতিসংঘের কর্মকর্তার মাথাব্যথা হলো কেন? এছাড়া আবরার হত্যার জন্যে অভিযুক্ত ১৯ জনকেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ন্যূনতম গড়িমসির ঘটনা ঘটেছে বলে কেউই মনে করছেন না। জাতিসংঘ এক্ষেত্রে বিবৃতি দিতে পারলে যুক্তরাষ্ট্রের উপরোক্ত ঘটনাসহ মানবতা বিপন্ন করার মত কোন ঘটনারইতো প্রতিক্রিয়া বা বিবৃতি জাতিসংঘ দিচ্ছে না। এরপর আর কোন জবাব পাওয়া যায়নি।

 

 

পূর্বকোণ/এম

The Post Viewed By: 192 People