চট্টগ্রাম রবিবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০২১

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ২:৪১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা অফিস

অস্বস্তি কাটছে না সৌদি যাত্রীদের

টোকেন আছে, টিকিট নেই

ভোগান্তি পিছু ছাড়ছে না সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরে আসা প্রবাসী কর্মজীবীদের। প্রায় ৩৫ হাজার প্রবাসীর ভিসা ও আকামার মেয়াদ শেষ হচ্ছে আর চার দিন পর ৩০ সেপ্টেম্বর। কিন্ত এর মধ্যে মাত্র সাত হাজার যাত্রীকে উড়োজাহাজের টিকিট সংগ্রহের টোকেন দিয়েছে সৌদি এয়ারলাইনস। তবে টোকেন পেয়েও অনিশ্চয়তা কাটছে না অনেকের। টিকিটি হাতে না আসা পর্যন্ত এই অনিশ্চয়তায় তাদের দূর হবে না বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা। এদের একজন আবুল কালাম জানিয়েছে, টিকেটের আশায় গত ৫ দিন ধরে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে তিনি কারওয়ান বাজার আর মতিঝিল দৌড়াচ্ছেন। এদিকে, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস টিকিটের মেয়াদ বাড়িয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে। তবে, অন্য এয়ারলাইন্সের রিটার্ন টিকিট রয়েছে, এমন যাত্রীরা কীভাবে সৌদি ফিরবেন তা সুরাহা না হওয়ায় বিষয়টি ঝুলে রয়েছে। অবশ্য, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন আশ্বাস দিয়েছেন, ভিসা ও ফ্লাইট নিয়ে জটিলতা হবে না। যাদের ভিসা এবং আকামার মেয়াদ ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হবে তাদের ভিসার মেয়াদ বাড়াতে ২৭ সেপ্টেম্বর সৌদি দূতাবাসে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, যাদের আকামা ও ভিসা আছে, দেশে এসেছেন ছুটিতে, তাদের সবাই সৌদি আরব যেতে পারবেন, কোনও জটিলতা হবে না। এর জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে বলেও জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গতকাল টানা পঞ্চম দিনের মতো কারওয়ান বাজারে ভিড় করছেন সৌদি এয়ারের টিকিট প্রত্যাশীরা। বড় অংশের অভিযোগ, টোকেন সংগ্রহ করেও টিকিট পাচ্ছেন না তারা। তথ্য বিভ্রাটের কারণে পদে পদে দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে তাদের। মূলত, বিভিন্ন রংয়ের টোকেন সরবরাহ করার কারণেই এ বিভ্রাট দেখা দিয়েছে। টোকেন পদ্ধতি সঠিক হয়নি দাবি করে ভুক্তভোগী যাত্রীরা অভিযোগ করেন, টিকিট দেওয়া হোক যাত্রার তারিখ হিসেবে। সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়েছেন, যাদের রিটার্ন টিকিট সৌদি এয়ার কিংবা বিমান বাংলাদেশের বাহিরে অন্য এয়ারলাইন্সের। তারা কীভাবে সৌদি ফিরবেন তারও উত্তর পাচ্ছেন না। তবে, ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়া আকামার মেয়াদ স্বয়ংক্রিয়ভাবে নবায়ন হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সৌদির ভিসা ও ফ্লাইট নিয়ে কোনো জটিলতা হবে না বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি। সৌদি এবং বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস সৌদি প্রবাসীদের টিকিকের জন্য টোকেন এবং তারিখ নির্ধারণ করে দিলেও কমছে না বিশৃঙ্খলা। এদিকে, সৌদি যাওয়ার টিকিট যেন সোনার হরিণ। সেই টিকেট নিতে গত দুদিন ধরে সৌদি প্রবাসীরা ঘুরছেন কখনো সৌদি এয়ারলাইন্সের কারওয়ান বাজার শাখায়, আবার কখনো বা মতিঝিলের বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স অফিসে। সামনের গেটে যখন টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন তখন অবৈধভাবে পেছনের গেইট দিয়ে টাকার বিনিময়ে বিমান অফিসে লোক প্রবেশ করাচ্ছেন কিছু দালাল চক্র। গতকাল সেই চিত্রও দেখা গেছে। একজন অভিযোগ করেন, দুই হাজার টাকা দিয়ে ভিতরে লোক প্রবেশ করানো হচ্ছে। আনসার সদস্যরা তাদের ভিতরে যেতে দিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, সৌদি প্রবাসীরা যাত্রার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে যেন করোনা পরীক্ষার সনদ হাতে পান, সেজন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 227 People

সম্পর্কিত পোস্ট