চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

৩০ ডিসেম্বর, ২০২২ | ৮:৫৭ অপরাহ্ণ

সৃজনশীল আদর্শ প্রজন্ম গড়তে ‘অক্সিজেন স্কুল এন্ড কলেজ’

মানুষ হয়ে বাঁচতে হলে সভ্যতার আলোয় আলোকিত হতে হয়। সভ্যতার আলো মানেই শিক্ষার আলো। একজন সচেতন কর্মক্ষম মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হলে শিক্ষার প্রয়োজন প্রথমেই। শিক্ষা হচ্ছে কোন বিষয়ে জানার পরিকল্পিত কার্যক্রম। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে একজন মানব শিশু ধীরে ধীরে আলোকিত মানুষে পরিণত হয়। তাই একটি অগ্রসরমান জাতির মূল চালিকা শক্তিই হলো শিক্ষা। আর অনগ্রসর অক্সিজেন এলাকায় শিক্ষার আলো ছড়াতে তিনজন অভিজ্ঞ শিক্ষকের উদ্যোগে ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ‘অক্সিজেন স্কুল এন্ড কলেজ’।
প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী অধ্যাপক কামালউদ্দিন আহমদ, বিএ (অনার্স) এম এ (ইংরেজী), বিভাগীয় প্রধান, বিজয় স্মরণী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ বলেন, ২০০২ সালে এলাকার প্রতিনিধিত্বকারী একমাত্র প্রতিষ্ঠান অক্সিজেন স্কুল এন্ড কলেজ (ওএসসি) এর অগ্রযাত্রা শুরু হয়। সফলতার ছকে প্রতি বছর এস.এস.সি পরীক্ষায় গোল্ডেন এ প্লাস ও এ সহ শতভাগ পাশের কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলে ইতোমধ্যে এলাকায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্থান করে নিয়েছে এই বিদ্যালয়। দক্ষ/অভিজ্ঞ/উচ্চশিক্ষিত পরিচালক দ্বারা পরিচালিত মানসম্পন্ন শিক্ষা প্রদানে সফল হওয়ায় দুটি ক্যাম্পাস ও হোস্টেলসহ লেখাপড়া করার একমাত্র আদর্শ প্রতিষ্ঠানরুপে অভিভাবকগণের আস্থা অর্জন করেছে অক্সিজেন স্কুল এন্ড কলেজ। সম্প্রতি প্রকাশিত ২০২২ সালের এসএসসিতেও ৪জন এ প্লাস, ২১ জন এ সহ শতভাগ পাসের গৌরব অর্জন করেছে আমাদের শিক্ষার্থীরা।
শিক্ষার মান ও পদ্ধতি : স্কুল পরিচালক এবং অভিজ্ঞ শিক্ষক অধ্যক্ষ মো. নজরুল ইসলাম,(বিএসসি, বিএড, এমএসসি, এলএলবি)শিক্ষার মান ও পদ্ধতি সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেন, প্লে হতে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদানের জন্য দক্ষ ও আন্তরিক একদল শিক্ষক শিক্ষিকার সমাবেশ ঘটানো হয়েছে এই প্রতিষ্ঠানে। নিয়মিত ওরিয়েন্টেশনের মাধ্যমে শিক্ষকবৃন্দের দক্ষতা বৃদ্ধি করা হয়। এখানে উল্লেখ্য যে, ২০২৩ সাল থেকে পরিবর্তিত নুতন কারিকুলামের উপর বিশেষ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন আমাদের শিক্ষকবৃন্দ।
বছরের শুরুতেই একটি সুষ্ঠু পরিকল্পনায় শিক্ষাক্রম পরিচালনার নিমিত্তে পুরো বছর একটি নির্দিষ্ট এডুকেশন প্ল্যান তৈরি করে নেওয়া হয়। বি.এড কার্যক্রম অনুসারে এই নির্দিষ্ট লেসন প্ল্যান অনুসারে শিক্ষার্থীদের পাঠ দেয়া হয়। শিশুদের মনন ও মেধা বিকাশের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেন এখনকার শিক্ষকগণ। শিশুদের বিভিন্ন পাঠ উপযোগী যেমন- কম্পিউটার, রাইমস ও বর্ণমালার সি.ডি, প্লাস্টিক মেটার, পুতুল, খেলনা ও ছবির মাধ্যমে পাঠকে আকর্ষণীয় এবং সহজবোধ্য করে তুলে শিক্ষার্থীদের কাছে। উচ্চ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে প্রয়োজনীয় উপকরণ। অভিজ্ঞ এবং দক্ষ শিক্ষকগণের আন্তরিকতায় অপেক্ষাকৃত দুর্বল ছাত্রছাত্রীদের জন্য রয়েছে বিশেষ নজরদারী এবং স্পেশাল কোচিং ক্লাস।
কম্পিউটার শিক্ষা : বর্তমানে পুরো পৃথিবীই একটা আইসিটি ভিলেজ। বিশ্বায়নের এই যুগে কম্পিউটার বিহীন শিক্ষার কথা কল্পনাই করা যায় না। এই কথা মাথায় রেখে ও.এস.সি সকল শ্রেণিতে কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক করেছে। কে.জি ক্লাস এবং শিশুদের বিভিন্ন ছড়ার সিডি গেমস, পেইন্টিং, ড্রয়িং ইত্যাদি সফটওয়্যার এর মাধ্যমে কম্পিউটার প্রযুক্তির সাথে সংযুক্ত করা হয়। উচ্চতর শ্রেণীতে (MS WORD, MS EXCEL,MS ACCESS,POWER POINT, GRAPHICS PROGRAME) সমূহ শিখানো হয়। শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে ২ দিন কম্পিউটার ক্লাস এর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে কেজি থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত ।
মূল্যায়ন পদ্ধতি : পরীক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে সিনিয়র শিক্ষিকা পারভীন আক্তার বলেন, বাৎসরিক ২টি টার্মিনাল পরীক্ষা, প্রতিটি টার্র্মিনাল পরীক্ষার পূর্বে ৩টি ক্লাস টেস্ট এর ভিত্তিতে সাজানো হয়েছে অক্সিজেন স্কুল এন্ড কলেজের পরীক্ষা পদ্ধতি ।
চূড়ান্ত পরীক্ষার ক্ষেত্রে : (ক) নিয়মানুবর্তিতা (খ) পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা (গ) আচরণ (ঘ) খেলাধুলা/ শরীর চর্চা ঙ) সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড ইত্যাদি বিষয়ের উপর একটি মূল্যায়ন নম্বর যোগ করা হয়।
সহ–শিক্ষা কার্যক্রম : স্কুলের অন্যতম পরিচালক মুসলিমউদ্দীন কাদেরী (বিএ, অনার্স, এম,এ) বলেন “মান সম্পন্ন শিক্ষার পাশাপাশি স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও শৃঙ্খলা শিক্ষার জন্য নিয়মিত পিটি প্যারেড, স্কাউটিং ও খেলাধুলা আয়োজন করে থাকি আমরা। নিয়মিত লেখাপড়া, পাশাপাশি সুস্থ মানসিকতার জন্য চাই সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চা। তাই সহশিক্ষা কার্যক্রম হিসাবে আমরা অংকন, গান, কবিতা, গল্প বলা ইত্যাদি বিবিধ সাংস্কৃতিক চর্চায় উৎসাহী করে তোলার জন্য ছাত্র–ছাত্রীদের কালচারাল টিচার নিয়মিত প্রশিক্ষণ দেন। শ্রেণিসমূহে চারুকলা (অংকন) সংগীত ও SPOKEN GLISH, ধর্মীয় শিক্ষা ও কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অভিজ্ঞ আর্ট শিক্ষক দ্বারা সপ্তাহে দুদিন আর্ট ক্লাস পরিচালনা করা হয়। অভিজ্ঞ সাংস্কৃতিক শিক্ষক দ্বারা সংগীত, নৃত্য, তবলা ইত্যাদি প্রশিক্ষণ কোর্সের ব্যবস্থা রয়েছে। শুধু সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড নয় ভর্তিকৃত ছাত্রছাত্রীদের অভিজ্ঞ মৌলভি দ্বারা কুরআন ও হাদিস শিক্ষা ও আমল আখলাকের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।
পুঁথিগত জ্ঞানের বাহিরে বিশাল জ্ঞান সমুদ্রের নুড়ি কুড়াতে বই পাঠের কোন বিকল্প নেই। তাই ও.এস.সি তে রয়েছে সাহিত্য শিল্প, উপন্যাস বিজ্ঞান ভিত্তিক বই সম্পন্ন লাইব্রেরী। এছাড়া প্রতিবছর বার্ষিক শিক্ষা সফর, বনভোজন ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় মহাড়ম্বে। দেশাত্ববোধ ও দেশপ্রেমকে নতুন প্রজন্মের মাঝে সঞ্জীবিত করার লক্ষ্যে বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস, শহিদ দিবস সহ জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিবস সমূহ অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পালন করা হয় এই বিদ্যালয়ে”।
আবাসিক সুবিধা : বিদেশে অবস্থানরত (প্রবাসী) এবং গ্রামাঞ্চলের সচেতন অভিভাবক ও শহরের কর্মব্যস্ত অভিভাবক সহ যাদের সন্তানদের উন্নত শিক্ষার পরিবেশে রেখে আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে চান তাদের জন্য অক্সিজেন স্কুল এন্ড কলেজে রয়েছে নিরাপদ ও মনোরম পরিবেশসমৃদ্ধ আবাসিক সুবিধা। হোস্টেলে শিক্ষাথীরা প্রতিটি মূর্হুত নিয়মিত রুটিন অনুসারে অতিবাহিত করে। মুসলিম শিক্ষার্থীদের কোরআন শিক্ষা এবং অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের জন্য স্ব স্ব ধর্মীয় শিক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে।
বঙ্গবন্ধু এভিনিউ, কুয়াইশ সংযোগ সড়ক, অক্সিজেন আবাসিক এলাকা, বায়েজিদ, চট্টগ্রাম। ফোন : ০১৮১৪-৯৪১৮৩৭, ০১৮১৭-২২১৬১৬, ০১৮১৩-৬৯৭৭০৭ নম্বরে এবং অক্সিজেন স্কুল এন্ড কলেজ – ওএসসি ফেসবুক পেইজে লগইন করে বিস্তারিত জানা যাবে।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট