চট্টগ্রাম বুধবার, ২১ এপ্রিল, ২০২১

৮ জানুয়ারি, ২০২১ | ৬:২১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রশ্নের মুখোমুখি প্রধান শিক্ষক

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নবম শ্রেণিতে বিভাগ বাছাই পরীক্ষা

সরকারি নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও নবম শ্রেণির বিভাগ বাছাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে নগরীর একটি সরকারি বিদ্যালয়ে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নাসিরাবাদ সরকারি বিদ্যালয়ে এই বাছাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এই অবস্থায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পরীক্ষা নেয়াকে বিধিবহির্ভূত বলছেন চট্টগ্রাম জেলা শিক্ষা অফিসার। তবে অভিভাবকের অনুরোধে এবং অন্য শিক্ষকদের সম্মতিক্রমে সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই পরীক্ষা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন নাসিরাবাদ সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সকালে বিদ্যালয়ের দুইটি কক্ষে শিক্ষার্থী বসে পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। গণিত ও বিজ্ঞান বিষয়ে ২৫ নম্বর করে মোট ৫০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতি টেবিলে একজন করে বসিয়ে এ পরীক্ষা নেয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম জেলা শিক্ষা অফিসার এসএম জিয়াউল হায়দার হেনরী জানান, এখন তো আসলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এসে কোন পরীক্ষা নেয়া কিংবা ক্লাস করার সুযোগ নেই। এটা যদি কেউ করে থাকে, তাহলে তা সম্পূর্ণ বিধিবহির্ভূত কাজ। নাসিরাবাদ সরকারি বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণির বিভাগ বাছাই পরীক্ষা নেয়ার ব্যাপারে আমি অবগত ছিলাম না। আপনার থেকে এইমাত্র জানলাম।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নাসিরাবাদ সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এম ফরিদুল আলম হোসাইনী বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে গত বছর অষ্টম শ্রেণির জেএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। তাই স্কুলের শিক্ষকদের সিদ্ধান্ত মতে যারা ২০১৯ সালে সপ্তম শ্রেণি থেকে ৩.৭০ বা এর বেশি পয়েন্ট পেয়ে অষ্টম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়েছিল, তারা বিজ্ঞান বিভাগে পড়ার সুযোগ পাচ্ছে। তবে ৩ দশমিক ৭০ এর চেয়ে কম পয়েন্ট পেয়ে উত্তীর্ণ হওয়া শিক্ষার্থীদের একাংশের অভিভাবক এসে আমাদের কাছে অনুরোধ করেছে, তাদেরও যেন বিজ্ঞান বিভাগে পড়ার সুযোগ দেয়া হয়। পরে শিক্ষকদের সম্মতিক্রমে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে এসব শিক্ষার্থীদের গণিত ও বিজ্ঞান বিষয়ের উপর ৫০ নম্বরের একটি মূল্যায়ন পরীক্ষা নেয়া হয়েছে।

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 621 People

সম্পর্কিত পোস্ট