চট্টগ্রাম সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ৪:১০ পূর্বাহ্ন

জিয়া হাবীব আহসান

স্মরণ : প্রতিবন্ধী সংগঠক সেলিম নজরুল

প্রতিবন্ধী মানুষরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবহেলিত, বঞ্চিত। আর এই প্রতিবন্ধী মানুষদের সংখ্যা দেশের মোট জনগোষ্ঠীর দশ শতাংশ। তাদের অধিকার নিয়ে কার্যকর ভূমিকা রাখার মত ব্যক্তি বা সংস্থা দেশে অত্যন্ত হাতেগোনা। এই ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধী মানুষের সামাজিকভাবে পুনর্বাসনে দেশের একজন সংগঠক পালন করে যাচ্ছিলেন অগ্রণী ভূমিকা। তিনি হলেন সেলিম নজরুল। তিনি ছিলেন একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী। কিন্তু এই প্রতিবন্ধীত্ব তিনি জয় করেছেন নিজের সাংগঠনিক মেধা, প্রজ্ঞা, বিচক্ষণতা, দৃঢ় আত্মপ্রত্যয় ও সংকল্পের মাধ্যমে। এভাবেই তিনি চট্টগ্রামে গড়ে তুলেছেন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সামগ্রিক সেবামূলক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘সেন্টার ফর ডিসএ্যাবলস কনসার্ন-সিডিসি’। কঠোর পরিশ্রম, আত্মত্যাগ ও প্রচেষ্টার মাধ্যমে প্রতিবন্ধী, অবহেলিত, ছিন্নমূল, দুস্থ ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে তার উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত সিডিসি এখন শুধু চট্টগ্রামেই নয় দেশজুড়ে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সমৃদ্ধ পথের নির্দেশনা।

সেলিম নজরুল ছিলেন এক অমিয় শক্তি ও প্রেরণার উৎস। গত ১৫ই অক্টোবর সেলিম নজরুলের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। আত্মপ্রত্যয়ী ও দৃঢ়চেতা এই প্রতিবন্ধী সংগঠক মৃত্যুর পূর্বমুহূর্ত পর্যন্ত প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় নিরন্তর কাজ করে গেছেন। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের পরনির্ভরশীলতাকে তিনি স্ব-নির্ভরতায় পরিণত করার স্বপ্ন দেখতেন সর্বদা। মানবাধিকার কর্মকান্ডে তিনি ছিলেন আমাদের সকল প্রেরণার উৎস। একটি হুইল চেয়ারকে চিরসাথী করে এদেশের বঞ্চিত অবহেলিত প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য তিনি দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে গেছেন। এখনও তিনি বেঁচে আছেন, বেঁচে থাকবেন তার আদর্শের মাঝে, কর্মের মাঝে। তার প্রতিষ্ঠিত প্রতিবন্ধী সংগঠন সিডিসি (সেন্টার ফর ডিসএ্যাবল কনসার্ন) এখন এদেশের প্রতিটি প্রতিবন্ধী মানুষের প্রিয় নাম, প্রিয় সংগঠন। প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য শিক্ষা ও চিকিৎসা সেবামূলক প্রতিষ্ঠান ‘ইনস্টিটিউট ফর স্পেশাল চাইল্ড-আইএসসি’ সিডিসির একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান। বিভিন্ন ধরনের শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী শিশুদের সমন্বিত শিক্ষা ও চিকিৎসা সেবার সুবিধাদি রয়েছে এখানে। যখনই নিজের জীবনে হতাশা আসে, ভালো কাজে বাধা আসে তখনই বন্ধু সেলিমের আদর্শ আমাদের সে প্রতিবন্ধকতা দূরীকরণে অমীয় শক্তি ও সাহস যোগায়। শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী হলেও মানসিকভাবে তিনি প্রতিবন্ধী ছিলেন না। আমরা শারীরিকভাবে সচল হলেও মানসিকভাবে তার মতো সচল নই। সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে যার কণ্ঠস্বর ছিল চিরজাগরুক-তিনি প্রয়াত সেলিম নজরুল। যাকে নিউক্লিয়াস করে ২০০১ সালে চট্টগ্রামে গড়ে উঠেছিল চট্টগ্রাম প্রতিবন্ধী ফোরাম। পরবর্তীতে জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম (এনএফওডিব্লিউডি)-এর অনুরোধক্রমে যার নামকরণ করা হয় চিটাগাং সোসাইটি ফর দ্য ডিজএ্যাবল্ড (সিএসডি)। স্কুল ও কলেজ জীবনে সেলিম লেখালেখি ও ক্রীড়া সাংবাদিকতায় যুক্ত ছিলেন। সদা হাস্যোজ্জ্বল সেলিম জীবনে একদিন দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়ে যাবেন তা কখনো কেউ ভাবেননি। এভাবে আমরাও যেকোন সময় যেকোন দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে প্রতিবন্ধী মানুষের কাতারভুক্ত হতে পারি। হয়ত স্রষ্টা প্রতিবন্ধী মানুষের পক্ষে বলিষ্ঠ আওয়াজ তোলার জন্য তাকে এ পথে নিয়ে এসেছিলেন। তিনি ১৯৯৩ সালের ১৮ জুন এক বৃষ্টি¯œাত রাতে লালদিঘীর মোড়ে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হন। এতে তার মেরুদ- বা স্পাইনাল কর্ড মারাত্নকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। চট্টগ্রাম এবং ঢাকায় দীর্ঘ ১৪মাস চিকিৎসা চললেও তিনি আর দাঁড়ানো বা হাঁটার শক্তি ফিরে পাননি। কিন্তু তার অদম্য সাহস ও ইচ্ছাশক্তি তাকে গৃহবন্ধী করে রাখতে পারেনি। ২০০১ সালে সিডিসি প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তিনি প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর জীবন-মান উন্নয়নে প্রতিটি মুহূর্ত কাজে লাগাতে থাকেন। এ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তিনি প্রতিবন্ধী মানুষের সহায়ক উপকরণের প্রয়োজন মেটাতে থাকেন। এরপর চিটাগাং সোসাইট ফর দ্যা ডিসএ্যাবল (সিএসডি) প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তিনি প্রতিবন্ধীদের চিকিৎসা ও সচেতনতা সৃষ্টিতে ব্যাপক অবদান রাখেন। তার ক্ষুরধার লেখনি ও বক্তৃতার মাধ্যমে দেশের ১০ শতাংশ প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর অধিকারের বিষয়টি রাষ্ট্র, সরকার ও পার্লামেন্টের দৃষ্টিতে উঠে আসে। প্রতিবন্ধী আইন সংস্কার ও যুগোপযোগী করতে তিনি আমাকে ও দেশের ১ম দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী আইনজীবী খাদেমূল ইসলাম চৌধুরীকে একটি প্রস্তাবনা প্রস্তত করতে দেন। বাজেটে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধির ব্যাপারে তিনি জোর আওয়াজ তুলেন। উক্ত প্রস্তাবনা তিনি পার্লামেন্টে প্রেরণ করলে বাজেটে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বরাদ্দ বৃদ্ধি পায়। এদেশের প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা আজ যতটুকু অধিকার পেয়েছে তার পেছনে সেলিমের মেধা, শ্রম ও চিন্তাশক্তি কোন না কোনভাবে কাজ করেছে। তিনি ছবি তোলা, লেখালেখি, বক্তৃতা, বিতর্ক প্রভৃতিতে অসাধারণ যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখেন। আল্লাহ্ মরহুম সেলিম নজরুলের বিদেহী আত্মাকে শান্তি দিন ও জান্নাত নসিব করুন। আমিন।

জিয়া হাবীব আহসান আইনজীবী, কলামিস্ট, সু-শাসন ও মানবাধিকারকর্মী।

The Post Viewed By: 34 People

সম্পর্কিত পোস্ট