চট্টগ্রাম বুধবার, ০৩ মার্চ, ২০২১

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ

সাবিহা সুলতানা

আমাজন রক্ষায় আন্তর্জাতিক পদক্ষেপ চাই

সব সচেতন মানুষেরই জানা, পৃথিবীর সবচেয়ে বড় রেইনফরেস্ট হচ্ছে আমাজন। যার আয়তন ৫৫ লাখ বর্গকিলোমিটার। এই বনের বুক চিরে বয়ে গেছে আমাজন নদী। যে নদী প্রতি সেকেন্ডে ৪.২ মিলিয়ন ঘনফুট পানি নিয়ে ফেলে সাগরে। গোটা পৃথিবীর ২০ শতাংশ অক্সিজেন উৎপাদন করে আমাজন। যে কারণে আমাজনকে বলা হয় ‘পৃথিবীর ফুসফুস’। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্য যে আজ সেই আমাজন বিপন্ন অবস্থায় রয়েছে। আগুনের লেলিহান শিখা ক্রমশ গ্রাস করেছে এই চিরহরিৎ বনভূমিকে। ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইনপের সমীক্ষা বলেছে, এ বছর আমাজন বৃষ্টিঅরণ্যে ৭২,৮৪৩টি দাবানলের ঘটনা নথিভুক্ত হয়েছে। গত বছরের তুলনায় ৪৩% বেশি। আমাজনে আগুনের লেলিহান শিখায় ঢাকা পড়েছে সূর্য। যেদিকে তাকানো যায় শুধু কুন্ডলিপাকানো ধোঁয়া ছাড়া আর কিছুই নেই সেখানে। ল্যাটিন আমেরিকার প্রায় ৪০% জায়গা জুড়ে যে আমাজন বনের বিস্তার, সেই বন দীর্ঘ চার সপ্তাহ ধরে সর্বগ্রাসী আগুনে পুড়ছে। ওই সংস্থা আরো বলেছে, সেখানে ছোট-বড় আগুনের সংখ্যা বর্তমানে দাঁড়িয়েছে ৩৯ হাজার ১৯৪টি। সারাবিশ্বের পরিবেশবাদী থেকে শুরু করে ক্রীড়াঙ্গনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এই বন রক্ষার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। আমাজনের এই আগুন মানবসৃষ্ট দুর্যোগের ফল। এই দুর্যোগ জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে হয়েছে। মানবসৃষ্ট দুর্যোগগুলোর বিরুদ্ধে বিশ্ববাসীকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। যদি আমরা তা করতে পারি তাহলে আমাজন বন রক্ষা করতে পারব। সাথে আমাদেরও রক্ষা করতে পারবো বিপন্নতার গ্রাস থেকে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 165 People

সম্পর্কিত পোস্ট