চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

২৫ আগস্ট, ২০১৯ | ১২:৪৫ এএম

গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা

বিগত কয়েক বছর ধরে চেষ্টার পরও চালু করা যায়নি কাক্সিক্ষত সেই গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা। এবারে কয়েকটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় একজোট হয়ে চেষ্টা করলেও শেষমেষ তা থেকে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় আবার পিছিয়েও এসেছে। ইউজিসির উচিত অতি দ্রুত এ মানবিক কাজে এগিয়ে আসা। নয়তো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্ন সাধারণ পরিবারের ছেলে-মেয়েদের জন্য অধরা হয়ে যাবে। একে তো ভর্তি ফরমের চড়া মূল্য, তার ওপর এক শহর থেকে অন্য শহরের দূরত্ব। এতে যাতায়াত ভোগান্তি সহ নানান খরচাপাতি রয়েছে। যা সকল ছাত্র-ছাত্রীর পক্ষে মেটানো সম্ভব নয়। অনেকেই টিউশন করে বা বিভিন্ন জনের সহযোগিতায় পড়াশোনা করছে। তার পক্ষে এতো টাকো জোগাড় করাও মুশকিল হয়ে যায়। এতে করে অনেক দরিদ্র মেধাবী তরুণ বঞ্চিত হচ্ছে স্বপ্নের বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা থেকে। তাছাড়া অন্যান্যদের যাতায়াত ভোগান্তি ও একইসাথে দুই বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের তারিখ থাকছে। এতে ছাত্র-ছাত্রীরা যেমন ক্লান্ত হচ্ছে একইভাবে অভিবাবকরাও ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। অনেক নারী শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা এত দূর দূরান্তে দৌড়াদৌড়ি মুক্ত থাকতে তাকে পরীক্ষায় দিতে দিচ্ছেন না। স্বপ্নকে জলাঞ্জলি দিয়ে অতঃপর সে মেয়েটি হয়তো বাধ্য হয়ে ভর্তি হচ্ছে পাশের কোন ডিগ্রী কলেজে। এ বিষয়ে অতি দ্রুত কর্তৃপক্ষের যথাযথ পদক্ষেপ আশা করছি।

সিরাজুল মোস্তফা
পটিয়া, চট্টগ্রাম

The Post Viewed By: 67 People

সম্পর্কিত পোস্ট