চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১১ আগস্ট, ২০১৯ | ১২:৪৫ এএম

পশুবাহী গাড়িতে চাঁদাবাজি থামাতে হবে

আর মাত্র কয়েকদিন পরেই মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা অনুষ্ঠিত হবে। দিবসের প্রধান ও অন্যতম ইবাদত হচ্ছে পশু কোরবানি। পশু কোরবানির জন্য বাংলাদেশে সারাবছর লাখ লাখ পশুকে মোটা তাজা করতে কৃষকগণ মাথার ঘাম পায়ে ফেলে পরিশ্রম করতে দেখা যায়। লাখ লাখ কোটি কোটি টাকা খরচ করার মধ্য দিয়ে পশু মোটা তাজা ও পালন করে থাকে। উদ্দেশ্য একটাই কোরবানীর চাহিদা পূরণ করা ও অর্থনৈতিক সাবলম্বী অর্জন করা। পশু কোরবানির মাধ্যমে কৃষক থেকে রাষ্ট্র পর্যন্ত অর্থনৈতিকভাবে ব্যাপক সমৃদ্ধি অর্জন করে। কথা হচ্ছে এ পশু কোরবানিকে সামনে রেখে এ মৌসুমে দেশব্যাপী সন্ত্রাসী কর্তৃক সড়ক মহাসড়কে চাঁদাবাজির এক মহা উৎসব লক্ষ্য করা যায়। একটি পশু এক অঞ্চল থেকে অন্য জেলায় পৌছাতে ব্যাপারীদের কষ্ট ও ভোগান্তির সীমা থাকে না। কারণ বাজার থেকে পশু ক্রয় করা থেকে অন্য জেলার বাজারে এ পশু পৌঁছাতে অর্থ, এবং পথে পথে চাঁদাবাজির সম্মুখীন হতে হয়। চাঁদাবাজির কারণে অহেতুকভাবে পশুর মূল্য বৃদ্ধি পায়। ডাইরেক্ট-ইনডাইরেক্টলি কোরবানি দাতার ওপর আর্থিক চাপ পড়ে। বন্ধ করতে হবে রাস্তার সব ধরনের অনৈতিক চাঁদাবাজী। জনশান্তি নিরাপত্তা, ভোগান্তিমুক্ত ঈদ উদযাপন ও পশু কোরবানি প্রত্যাশা করে জনগণ।

মাহমুদুল হক আনসারী
চট্টগ্রাম

The Post Viewed By: 130 People

সম্পর্কিত পোস্ট