চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট, ২০২২

সর্বশেষ:

২৪ জুন, ২০২২ | ৭:৪১ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

টিকা নিতে হবে, মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি

করোনার চতুর্থ ঢেউয়ের শঙ্কা

মাস কয়েক স্বস্তিতে কাটলেও পুনরায় করোনার প্রকোপ বৃদ্ধির বিষয়টি উদ্বেগজনক। চলতি বছরের শুরুতে করোনা সংক্রমণের হার একেবারে কমে এক এর নিচে এবং মৃত্যুর সংখ্যা শূন্যে নেমে এসেছিল। এ অবস্থায় জনজীবনে স্বাভাবিকতা ফিরে আসে। তবে বিশেষজ্ঞরা প্রাণঘাতী করোনা সহসা বিদায় নেবে না বলে ভবিষ্যদ্বাণী করে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বলেছিলেন।

এখন করোনার হঠাৎ ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা তাঁদের ভবিষ্যদ্বাণী সত্য বলে প্রমাণিত হলো। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, দেশে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসে একদিনে শনাক্তের সংখ্যা গত চার মাস পর হাজার ছাড়িয়েছে। গত ১৫ ফেব্রুয়ারির পর দৈনিক শনাক্তের হার বুধবার ১৩ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে। সেদিন দৈনিক নমুনা পরীক্ষা অনুযায়ী শনাক্তের হার ছিল ১৩ দশমিক ৩০ শতাংশ। আগের দিন মঙ্গলবার এ হার ছিল ১১ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ। এদিকে প্রায় তিন সপ্তাহ পর গত চারদিন ধরে করোনায় একজন করে মারা যাচ্ছেন। বন্দরনগরী চট্টগ্রামেও পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। দেশে হঠাৎ করোনার ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতার জন্যে স্বাস্থ্যবিধি না মানা এবং করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ধরনের নতুন দুটি উপধরনকেই (সাবভ্যারিয়েন্ট) দায়ী করছেন জনস্বাস্থ্য-বিশেষজ্ঞরা। এ অবস্থায় দেশে করোনার চতুর্থ ঢেউ আসারও শঙ্কা ব্যক্ত করছেন তারা। এটি উদ্বেগের, সন্দেহ নেই।

জনগণের সচেতনতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি বোস্টার ডোজসহ গণটিকাদান কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করার কারণে বাংলাদেশে করোনার সংক্রমণ কাক্সিক্ষত নিয়ন্ত্রণে চলে আসায় দেশে বিভিন্ন খাতের ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার জন্য যখন নানা চেষ্টা চলছে, তখনই চতুর্থ ঢেউয়ের ইঙ্গিত পাওয়া গেল। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনার ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা চলতে থাকলে শিগগিরই সামাজিক সংক্রমণ শুরু হবে। এটি চরম উৎকণ্ঠার।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ধরনের নতুন দুটি উপধরন (সাবভ্যারিয়েন্ট) পাওয়া গেছে। উপধরন দুটি হলো বিএ.৪ ও বিএ.৫। মঙ্গলবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জিনোম সেন্টারের একদল গবেষক যশোরে দুজন আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে সংগৃহীত ভাইরাসের আংশিক (স্পাইক প্রোটিন) জিনোম সিকোয়েন্স করে ওমিক্রনের নতুন এ দুটি উপধরন শনাক্ত করেছে।

গবেষকরা জানিয়েছেন, এ উপধরন দুটি ওমিক্রনের চেয়ে পাঁচ গুণ বেশি শক্তিশালী। এ উপধরন দুটি বর্তমানে পৃথিবীতে সর্বোচ্চ প্রভাব বিস্তার করে আছে। এ সাবভ্যারিয়েন্টটি মানুষের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে সহজেই ফাঁকি দিতে সক্ষম। উল্লেখ্য, ওমিক্রনের এই উপধরন বাংলাদেশে নতুন। এটা প্রথম শুরু হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। পরে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বর্তমানে যুক্তরাজ্যে ৬ শতাংশ ও যুক্তরাষ্ট্রে ২১ শতাংশ রোগীই এ দুই উপধরনে আক্রান্ত। উপধরন দুটি ভারত ও ডেনমার্কে ব্যাপকহারে রয়েছে। সারা পৃথিবীতে এখন ওমিক্রনের ১১ রকমের ভ্যারিয়েন্ট সংক্রমণ ছাড়াচ্ছে। এই উপধরনের ওমিক্রনের ভেতরে ডেল্টার দুটি মিউটেশন আছে। এ কারণে এই সাবভ্যারিয়েন্ট সাধারণ ওমিক্রনের চেয়ে পাঁচ গুণ বেশি শক্তিশালী।

এই সাবভ্যারিয়েন্ট ডেল্টা ও ওমিক্রনের মিশ্রণ। তার মধ্যে ওমিক্রনের বৈশিষ্ট্যই বেশি। নতুন বৈশিষ্ট্যের কারণে এখন পৃথিবীতে এই উপধরনটি সর্বোচ্চ পর্যায়ে আছে। এই উপধরনটি দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা সংক্রমণের পঞ্চম ঢেউ এবং সাম্প্রতিককালে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের জন্য দায়ী বলে বিজ্ঞানীরা মনে করছেন। ভ্যাকসিন নেওয়া ব্যক্তিরাও এই সাবভ্যারিয়েন্ট দ্বারা আক্রান্ত হচ্ছেন। আমাদের দেশে বিদেশীদের অবাধ যাতায়াত বেশি। মানুষের সচেতনতা কম। ফলে ওমিক্রনের নতুন উপধরন দুটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। কাজেই এখন আমাদের বিশেষভাবে সতর্ক থাকতে হবে। সবাই সতর্ক থাকলে করোনার নতুন ঢেউ সীমিত রাখা কঠিন কোনো কাজ নয়।

আমরা মনে করি, অর্থনীতি এবং জনস্বাস্থ্যব্যবস্থার জন্য চরম হুমকিপূর্ণ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হারের উর্ধমুখীতার বিষয়টি, তথা করোনার চতুর্থ ঢেউয়ের আশংকাকে হালকাভাবে নেয়ার সুযোগ নেই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শের ভিত্তিতে বিমান, স্থল ও নৌবন্দরে প্রয়োজনীয় সুরক্ষা ব্যবস্থাসহ এখনই বহুমাত্রিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। সরকারের পাশাপাশি সাধারণ মানুষকেও সর্বোচ্চ সচেতনতা ও দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে। করোনার ছোবল থেকে বাঁচতে হলে প্রধানত যা যা করতে হবে, তা হচ্ছে মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা, হাঁচি-কাশির শিষ্টাচার মেনে চলাসহ যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মানা, একইসঙ্গে টিকা গ্রহণ করা। এর অন্যথায় জীবন-জীবিকা দুটোই চরম ঝুঁকিতে পড়বে। আমরা যদি করোনার টিকা নিই, স্বাস্থ্যবিধিগুলো যথাযথভাবে মেনে চলি তাহলে বিপদ কম হবে। আমরা আশা করবো, এ বিষয়ে সরকার ও সাধারণ মানুষ সর্বোচ্চ দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেবে।

 

পূর্বকোণ/সাফা/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট