চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

সর্বশেষ:

২৩ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:৪৭ পূর্বাহ্ণ

মোহাম্মদ আলী

২৬ জানুয়ারি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

শেখ রাসেল পানি শোধনাগার আনুষ্ঠানিক যাত্রার অপেক্ষায়

আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম ওয়াসার শেখ রাসেল (মদুনাঘাট) পানি শোধনাগার সরবরাহ প্রকল্প। আগামী ২৬ জানুয়ারি সকাল ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এটি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ উপলক্ষে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সংক্ষিপ্ত এক অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য, প্রশাসন, চট্টগ্রাম ওয়াসার উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। ২০১৮ সালের নভেম্বরে শেখ রাসেল (মদুনাঘাট) পানি শোধনাগার প্রকল্পটি চালু করে ওয়াসা। কিন্তু ওইসময়ে প্রকল্পটি উদ্বোধন করা হয়নি। প্রকল্পটি চালুর পর ওয়াসার পানি উৎপাদন বাড়ে দৈনিক আরো ৯ কোটি লিটার।

এর আগে ২০১৬ সালের অক্টোবরে ‘কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প-১’ নামে আরো একটি প্রকল্প চালু করে ওয়াসা। ১৮৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘চিটাগাং ওয়াটার সাপ্লাই ইম্প্রুভমেন্ট এ- সেনিটেশন’ প্রকল্পের অধীনে মদুনাঘাট পানি শোধনাগারের কাজ শুরু হয় ২০১১ সালে। তবে মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু হয় ২০১৪ সালে। বিশ্বব্যাংক, বাংলাদেশ সরকার ও চট্টগ্রাম ওয়াসার যৌথ অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হয়। এর মধ্যে বিশ্বব্যাংক ১ হাজার ৪৯৪ কোটি ৯০ লাখ, বাংলাদেশ সরকার ৩৭০ কোটি ৩৭ লাখ ও চট্টগ্রাম ওয়াসা ২২ কোটি ৫৪ লাখ টাকা অর্থায়ন করে। প্রকল্পের পানি শোধনাগার নির্মাণ করা হয় চট্টগ্রাম-

কাপ্তাই সড়কের হাটহাজারীর মদুনাঘাট এলাকায়। প্রকল্পের অধীনে বসানো হয়েছে ১২৬ কিলোমিটার ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন পাইপলাইন। প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে- হালদা নদী থেকে পানি উত্তোলনের পর পরিশোধন করে নগরীতে সরবরাহ করা। বিশেষ করে এ প্রকল্প থেকে নগরীর উত্তর-পূর্ব অংশ বৃহত্তর বাকলিয়া, মোহরা, চান্দগাঁও, কালামিয়া বাজার, কল্পলোক আবাসিক, রাহাত্তারপুল, খাতুনগঞ্জ, খাজা রোড, ডিসি রোড, সিরাজ উদ দৌল্লা সড়কের পূর্ব অংশ এবং পতেঙ্গা এলাকায় পানি সরবরাহ করা।
এ প্রসঙ্গে ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘২৬ জানুয়ারি সকাল ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শেখ রাসেল (মদুনাঘাট) পানি শোধনাগার সরবরাহ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ উপলক্ষে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সংক্ষিপ্ত এক অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য, প্রশাসন, চট্টগ্রাম ওয়াসার উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।’

প্রকল্প পরিচালক ও ওয়াসার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘শেখ রাসেল পানি শোধনাগার প্রকল্পটি পানি সরবরাহ শুরু করে ২০১৮ সালের নভেম্বরে। এতে ওয়াসার পানি উৎপাদন বেড়েছে দৈনিক আরো ৯ কোটি লিটার।’

প্রকৌশলী মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘প্রকল্পের আওতায় মদুনাঘাট এলাকায় পানি শোধনাগার নির্মাণ করা হয়েছে। প্রকল্প এলাকা থেকে কালুরঘাট পর্যন্ত ১১ দশমিক ৩ কিলোমিটার ট্রান্সমিশন পাইপলাইন এবং চট্টগ্রাম শহরে আরো ১১৫ কিলোমিটার ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন পাইপলাইন বসানো হয়েছে।

The Post Viewed By: 309 People

সম্পর্কিত পোস্ট