চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

সর্বশেষ:

২৩ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:০৯ পূর্বাহ্ণ

রিক্যাপ রিপোর্ট : চট্টগ্রাম বন্দরে নৌ অপরাধ শূন্যের কোটায়

দক্ষিণ ও পূর্ব এশিয়া অঞ্চলে চলাচলকারী জাহাজে জলদস্যুতা প্রতিরোধকারী সংস্থা রিক্যাপ গত ১৫ জানুয়ারি ২০২০ সালের প্রকাশিত ২০১৯ সালের প্রতিবেদনে প্রথম বারের মত চট্টগ্রাম বন্দর সহ বাংলাদেশের উপকূলীয় সমুদ্র অঞ্চলকে শতভাগ নিরাপদ ঘোষণা করেন। গত ২০ জানুয়ারি চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সভা কক্ষে রিক্যাপের ডেপুটি ডাইরেক্টর নিকোলাস লিও সহ পাঁচ সদস্যের একটি টিম ও পোর্ট ব্যবহারকারীদের মধ্যে একটি মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নিকোলাস চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (হারবার ও মেরিন) কমডোর শফিউল বারী(এনডিসি) পিএসসি, বি এন কে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে জলদস্যু মুক্ত করার বিশেষ কৌশল অবলম্বনের জন্য আন্তরিক অভিনন্দন জ্ঞাপন করেন। মতবিনিময় সভায় তিনি বাংলাদেশ কোস্টগার্ড বাহিনী ও বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে উপকূলীয় অঞ্চলে জলদস্যুতা প্রতিহত করার সর্বাত্বক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এছাড়াও বন্দরের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা আধুনিকায়ন করার জন্য প্রশংসা করেন। পরিদর্শনকারী টিমের প্রধান মি. নিকোলাস বলেন যে, সদস্যভূক্ত দেশ সমূহের মধ্যে ২০১৯ সালে চীনে ৩টি, ভারতে ৪টি, ইন্দোনিশিয়ায় ২০টি, মালেশিয়ায় ৮টি, ফিলিপাইনে ৬টি এবং ভিয়েতনামে ২টি নৌ চুরি এবং জলদস্যুতার ঘটনা সংঘটিত হলেও বাংলাদেশ শূন্যের কোটায় রয়েছে। তিনি আরো বলেন যে, ২০১৯ সালে নৌ-নিরাপত্তায় বাংলাদেশের অর্জন জাপান ও সিঙ্গাপুরের পর্যায়ে রয়েছে যা যেকোন মূল্যে অক্ষুন্ন রাখতে হবে। বাংলাদেশ শিপিং এজেন্ট এসোসিয়েশনের পরিচালক মামুনুর রশিদ বলেন যে, ২০০৪ সালে চট্টগ্রাম বন্দর আইএসপিএস কোড বাস্তবায়ন করে নিরাপত্তা ব্যব¯হায় ধীরে ধীরে ঈর্ষণীয় সাফল্য অর্জন করেছে যা আমাদের জন্য গর্বের বিষয়।

The Post Viewed By: 89 People

সম্পর্কিত পোস্ট