চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

সর্বশেষ:

২২ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:২৪ পূর্বাহ্ণ

পূর্বকোণ প্রতিনিধি হ রাঙামাটি অফিস

রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে গুলি করে হত্যার হুমকি

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বাঘাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বৃষ কেতু চাকমাকে গুলি করে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জনসংহতি সমিতিকে (মূল) দায়ী করা হয়েছে।
মোবাইল ফোনে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা এ হুমকি দিয়েছে বলে দাবি করেছেন, বাঘাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা। গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাঙামাটিস্থ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ তুলে ধরেন তারা। বিষয়টি স্বীকার করে

অবিলম্বে হুমকিদাতাদের খুঁজে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন, বৃষ কেতু চাকমা।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন, বাঘাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন আল মামুন। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও পার্বত্য আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য মো. কামাল উদ্দিন, বাঘাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি প্রিয়নন্দ চাকমা, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও আমতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাসেল চৌধুরীসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, কয়েক দিন আগে একাধিক অজ্ঞাত মোবাইল ফোনের নম্বর থেকে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমার নিকট ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে সন্ত্রাসীরা। দ্রুত পাঠানো না হলে গুলি করে হত্যার হুমকি দেয় তারা। ১৪ জানুয়ারি ০১৫৫৬৬০৪৯১৬ মোবাইল ফোন নম্বর থেকে কয়েকবার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়। একই নম্বর থেকে ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েও গুলি করে হত্যার হুমকি দেয়া হয়। পরদিন ১৫ জানুয়ারি আরেকটি নম্বর ০১৯৬৩৬৩২৯০৭ থেকে সরাসরি ফোন করে এবং ক্ষুদে বার্তায় আবার প্রাণনাশের হুমকি দেয় সন্ত্রাসীরা।

এ ঘটনায় ১৭ জানুয়ারি বাঘাইছড়ি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন, আমতলী ইউপি চেয়ারম্যান রাসেল চৌধুরী। একই দিন বাঘাইছড়ি প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনসহ উপজেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিল করেন, আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা। এরপর ইউপি চেয়ারম্যান রাসেল চৌধুরীকে হুমকি দিয়ে বলা হয়, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমার কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা নিয়ে যেতে। না হলে বৃষ কেতু চাকমাকে গুলি করে হত্যা করা হবে। পরে হুমকিদাতার পরিচয় পাওয়া যায়। সে জনসংহতি সমিতির (মূল) সঙ্গে জড়িত। তার নাম শোভা কান্ত চাকমা। সে বরকল উপজেলার সুবলং ইউনিয়নের হাজাছড়া গ্রামের দয়া মোহন চাকমার ছেলে। তার বিরুদ্ধে সোমবার রাঙ্গামাটি চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সিআর মামলা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে এসব সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছি। পরে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করা হয়।
অন্যদিকে যেসব মোবাইল ফোন থেকে হুমকি দেয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে, সেগুলোতে কল দেয়া হলে বন্ধ পাওয়া যায়।

The Post Viewed By: 23 People

সম্পর্কিত পোস্ট