চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

২০ জানুয়ারী, ২০২০ | ৫:৩৬ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক

জন্মবার্ষিকীর সভায় বিএনপি নেতৃবৃন্দ

আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার ছিলেন জিয়াউর রহমান

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৮৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল রবিবার বিপ্লব উদ্যানে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও আলোচনা সভা করেছে দলটি। সভায় বক্তারা বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার ছিলেন। নানা সংকটে বিধ্বস্ত ‘তলাবিহীন ঝুড়ি’ আখ্যাপ্রাপ্ত বাংলাদেশকে তিনি উন্নত ও সমৃদ্ধির বিশেষ মর্যাদাপূর্ণ অবস্থায় অধিষ্ঠিত করে দেশের ইতিহাসে একজন সফল ও মহান রাষ্ট্রনায়কের খ্যাতি লাভ করেছিলেন।

মহানগর বিএনপি : মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, জিয়াউর রহমান ৭ নভেম্বর সিপাহী জনতার এক গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে সেনাবাহিনী ও রাজনৈতিক ক্ষমতার কেন্দ্রে অধিষ্ঠিত হন। ১৯৭৭ সালের ২১ এপ্রিল রাষ্ট্রপতি বিচারপতি আবু সাদাত মো. সায়েম পদত্যাগের

পর শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক ও রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে ১৯৭৮ সালের ৩ জুন জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন শহীদ জিয়া। রাষ্ট্রপতি হিসেবে শহীদ জিয়ার সাফল্য বহুবিধ। তিনি নগরীর বিপ্লব উদ্যানে সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেন।

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন, জিয়াউর রহমানের আদর্শকে লালন করতে হবে। শহীদ জিয়া এদেশের উন্নয়নের জন্য দেশের একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে ছুটে গেছেন। শহীদ জিয়া খালকাটা কর্মসূচির মাধ্যমে কৃষিতে কৃষি বিপ্লব ঘটিয়েছিলেন। জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মহানগর বিএনপির উদ্যোগে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। এরমধ্যে দুপুর ১১টায় বিপ্লব উদ্যানে পুষ্পস্তবক অর্পণ, ১২টায় শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্মৃতিবিজড়িত জিয়া যাদুঘর পরিদর্শন, বাদে জোহর দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনস্থ জামে মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল, পরে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দিন, মহানগর বিএনপির সহসভাপতি আলহাজ এম এ আজিজ, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, মোহাম্মদ আলী, হারুন জামান, সামশুল আলম, ইকবাল চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক কাজী বেলাল উদ্দিন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আর ইউ চৌধুরী শাহীন, আহমেদুল আলম চৌধুরী রাসেল, কাউন্সিলর আবুল হাশেম, সামশুল হক, গাজী সিরাজ উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মনজুর আলম চৌধুরী মনজু, কামরুল ইসলাম, মো. সালাহ উদ্দিন, এডভোকেট এইচ এম রাশেদ খান, হামিদ হোসেন, থানা বিএনপির সভাপতি মনজুর রহমান চৌধুরী, মামুনুল ইসলাম হুমায়ুন, মোশাররফ হোসেন ডেপটি, কাউন্সিলর মো. আজম, জাহিদুল হাসান, থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আফতাবুর রহমান শাহীন, এ কে এম পেয়ারু, আবদুল হালিম স্বপন, আবু মুসা, আবদুল হাই, জাকির হোসেন, এস এম মফিজ উল্লাহ, কাজী সামশু, মো. হারুন, হাসান ওসমান প্রমুখ।

উত্তর জেলা বিএনপি : উত্তর জেলা বিএনপি’র মিলাদ ও দোয়া মাহফিল নাসিমন ভবন দলীয় কার্যালয়ের জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়। মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি নেতা এমএ হালিম, অধ্যাপক ইউনুস চৌধুরী, ইসহাক কাদের চৌধুরী, নুর মোহাম্মদ, আজম খান, সেকান্দর চৌধুরী, আবদুল আওয়াল চৌধুরী, সেলিম চেয়ারম্যান, মো. কামাল পাশা, অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম লতিফি, কাজী সালাউদ্দীন, সরোয়ার উদ্দীন সেলিম, মোবারক হোসেন কাঞ্চন, সোলাইমান মন্জু, মো. জাকের হোসেন, জয়নাল আবেদীন দুলাল, বদিউল আলম বদরু, শফিউল আলম চৌধুরী, মনির তালুকদার, এডভোকেট রেজাইনুর সিদ্দিকী উজ্জ্বল, সৈয়দ ইকবাল, ফজলুল করিম চৌধুরী, গাজী মোহাম্মদ হানিফ প্রমুখ।

মহানগর যুবদল : আমানত শাহ মাজার সংলগ্ন মসজিদে জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মহানগর যুবদলের উদ্যোগে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দীপ্তি’র সভাপতিত্বে ও সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মোশাররফ হোসাইনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন মহানগর যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি ইকবাল হোসেন, সহ-সভাপতি এস এম শাহ আলম রব, এম এ রাজ্জাক, ফজলুল হক সুমন, মোহাম্মদ ইলিয়াছ, আবদুল করিম, আবদুল গফুর বাবুল, মিয়া মোহাম্মদ হারুন, মনিরুল হাসান সিদ্দিকী, নাসির উদ্দিন চৌধুরী নাসিম, জসিমুল ইসলাম কিশোর, মো. আলী সাকি, আমান উল্লাহ আমান, মো. হুমায়ুন কবীর, ইকবাল পারভেজ, সেলিম উদ্দিন রাসেল, তৌহিদুল ইসলাম রাসেল, শাহীন পাটওয়ারী, রাজন খান, হেলাল হোসেন, গুলজার হোসেন প্রমুখ।

দক্ষিণ জেলা যুবদল : দক্ষিণ জেলা যুবদলের উদ্যোগে নগরীর হযরত শাহ আমানত (রহ.) এর মাজার সংলগ্ন মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ শাহজাহানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আজগরের সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক কমিটির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আব্বাস। উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সদস্য ইদ্রিস মিয়া চেয়ারম্যান, এড. মিজানুল হক, মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, মোস্তাফিজুর রহমান, হুমায়ুন কবীর আনসার, জিয়াউদ্দিন আসফাক, মাস্টার লোকমান হাকিম, এড. আবু তাহের, আবুল কালাম আবু, মো. শাহজাহান চৌধুরী, শফিকুল ইসলাম শাহীন, নুরুল হুদা জাহাঙ্গীর, জসিম উদ্দিন মেম্বার, রফিকুল ইসলাম খোকা, সাজেদুল ইসলাম মিন্টু, শফিকুল ইসলাম, রবিউল হোসেন বাদশা, মো. হাসান, মোজাম্মেল হক, হামিদুর রহমান পেয়ারু, মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু, মো. ইউসুফ, শফিকুল ইসলাম শফি, দিল মোহাম্মদ মঞ্জু, আবদুল মজিদ শাহ, বখতেয়ার উদ্দিন, আবু বক্কর, লুৎফুর রহমান লুতু, সাইফুল ইসলাম খোকন, দৌলত আকবর চৌধুরী, আবুল আলম নিরব, আবদুল মোমিন, আবদুস শুক্কুর, সাব্বির আহমেদ, মাসুদুর রহমান, মুহাম্মদ মামুনুর রশীদ, আব্বাস উদ্দিন, নাজমুল হোসেন, ডা. কামাল, জসিম উদ্দিন, মশিউর রহমান মিটু, নুরুল কবির কমিশনার, আলমগীর হোসেন, এস.এ হোসেন টুটুল প্রমুখ।

The Post Viewed By: 38 People

সম্পর্কিত পোস্ট