চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

১৯ জানুয়ারী, ২০২০ | ৪:৩৩ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব সংবাদদাতা হ সীতাকু-

হামলা ঠেকাতে গিয়ে নিজেই হামলার শিকার সীতাকু-ে সন্ত্রাসী হামলায় ইউপি সদস্যসহ আহত ২

সীতাকু-ে সন্ত্রাসী হামলায় এক ইউপি মেম্বারসহ দুই ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে আশরাফুল নামক একজনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগি ইউপি সদস্য থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সীতাকু-ের বাড়বকু- ইউনিয়ন পরিষদের ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল হোসেনের (৫৬) কাছে ঐ এলাকার ইউপি চেয়ারম্যান ছাদাকাত উল্লাহ মিয়াজী ফোন করে জানান যে স্থানীয় নুর মার দিঘিতে মো. জিয়া উদ্দিন (৩৫), মো. সোহেল (৩০) সহ ৭/৮ জন সন্ত্রাসী আশরাফুল ইসলাম (৩২) নামক এক যুবককে মারধর করছে। এই খবর পেয়ে ইসমাইল মেম্বার সেখানে উপস্থিত হলে জিয়া, সোহেল তাদের দলবল নিয়ে ইসমাইল হোসেনকেও রড দিয়ে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। পরে তিনি থানায় সংবাদ দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। এসময় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে গেলেও পুলিশ আশরাফুলকে মারাত্মক জখমপ্রাপ্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে উদ্ধার করে সীতাকু- স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। কিন্তু মাথায় গুরুতর চোটের কারণে আশরাফুলের বমি হতে থাকায় হাসপাতালের চিকিৎসক তাকে চমেকে স্থানান্তর করেন। এ বিষয়ে রাতে ইউপি সদস্য মো. ইসমাইল হোসেন বাদি হয়ে বাড়বকু- ইউনিয়নের নতুনপাড়ার নুরুল ইসলামের ছেলে জিয়া উদ্দিন ও একই এলাকার মৃত আবুল হাসেমের ছেলে মো. সোহেলসহ অজ্ঞাত ৭/৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।
বাড়বকু-ের ইউপি চেয়ারম্যান মো. ছাদাকাত উল্লাহ মিয়াজী জানান, ‘একদিন আগে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে এখন বিছানায় রেস্টে আছি। শনিবার (গতকাল) দুপুরে নুর মার দিঘিতে হটাৎ মারামারির খবর শুনে আমি প্যানেল চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেনকে পাঠাই। কিন্তু সন্ত্রাসী জিয়া ও সোহেল তার কোন কথা না শুনে উল্টো হামলা চালিয়ে তাকে ও আশরাফুলকে মারাত্মক জখম করে’।
সীতাকু- থানার ওসি মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, এ ঘটনার পর ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন সন্ধ্যায় বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছে। আসামি গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

The Post Viewed By: 38 People

সম্পর্কিত পোস্ট