চট্টগ্রাম বুধবার, ২৭ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

১৭ মে, ২০১৯ | ১১:২০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মসজিদে আত্মসর্মপণ করলো ৭ ইয়াবা ব্যবসায়ী

নগরীর বাকলিয়ার একটি মসজিদে আত্মসমর্পণ করেছেন সাত মাদক ব্যবসায়ী। থানার ওসি নেজাম উদ্দীনের হুঁশিয়ারির পর বজ্রঘোনা এলাকার মদনী মসজিদে দুই হাজার মুসল্লির উপস্থিতিতে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেন এই সাত মাদক ব্যবসায়ী। আজ শুক্রবার বজ্রঘোনা এলাকার মদনী মসজিদে জুমার নামাজে ওসি নেজাম উপস্থিত হলে মাদক ব্যবসায়ীরা আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার ইচ্ছার কথা জানান।

এই সাতজন হলেন- আবু বক্কর (৪৫), আব্দুল মাবুদ (৩৮), মোঃ শাহজাহান (৪৫), মোঃ শামসু (৪০), এসকান্দর মির্জা (৫৬), ওছিউর রহমান (৪৫) ও মোঃ ইছাহাক (৫০)। তারা সবাই মাদক আইনে একাধিক বিচারাধীন মামলার আসামি বলে জানান বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নেজাম উদ্দিন।

এর আগে গত ৯ মে রাতে একুশে পত্রিকার মাধ্যমে মাদক ব্যবসায়ীদের প্রতি তিনটি ‘প্রস্তাব’ দিয়ে বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দীন বলেছিলেন, ‘আত্মসমর্পণ করতে হবে, নয়তো বাকলিয়া থানা এলাকা ছাড়তে হবে, অন্যথায় গ্রেপ্তার হয়ে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে।’

এরপর ১০ মে বাকলিয়া থানাধীন প্রায় সব মসজিদের খতিবরা জুমার খুতবার সময় ওসি নেজাম উদ্দীনের অনুরোধে তিনটি বার্তা প্রচার করেন; এতে মাদক ব্যবসায়ীদের আত্মসমর্পণ করার আহ্বানও ছিল।

এরই প্রেক্ষিতে আজ শুক্রবার বজ্রঘোনা এলাকার মদনী মসজিদে জুমার নামাজে ওসি নেজাম উপস্থিত হলে চার মাদক ব্যবসায়ী আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার ইচ্ছার কথা জানান।

এরপর মুসল্লিদের মধ্যে আরো মাদক ব্যবসায়ী থাকলে আত্মসমর্পণের জন্য ওসি আহবান জানালে আরো তিন ইয়াবা ব্যবসায়ী আত্মসমর্পণ করবেন বলে জানান। পরে তাদেরকে মসজিদে শপথ বাক্য পাঠ করান ওসি নেজাম।

ওসি নেজাম উদ্দীন বলেন, গত ২ মে থেকে আজকে পর্যন্ত মাদক আইনে বাকলিয়া থানায় ৬৪টি মামলা রেকর্ড হয়েছে এবং ৮৪ জন মাদক ব্যবাসায়ীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়া আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বাকলিয়ার ১৮ নং ওয়ার্ডের মাদক সেবনকারী এবং ব্যবসায়ীদেরকে আত্মসমর্পণ করার আহবান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে আত্মসর্মপণকারী ইয়াবা ব্যবসায়ীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য পুরষ্কার প্রদান করেন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর হারুন অর রশীদ।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 445 People

সম্পর্কিত পোস্ট