চট্টগ্রাম শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ৫:২৬ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব সংবাদদাতা হ পটিয়া

৭শ টাকার টোল নিয়ে ৩ শ টাকার স্লিপ

শাহ আমানত সেতুর টোল বক্সে ট্রাক চালককে মারধর

কর্ণফুলী শাহ আমানত সেতুর টোল বক্সে এক ট্রাক চালককে (আজিজুর রহমান) ৭ শ টাকার টোল নিয়ে ৩ শ টাকার স্লিপ দেয়া হয়। এর প্রতিবাদ করায় টোল কর্তৃপক্ষের লোকজন তাকে মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে। ঘটনাটি বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯ টায় ঘটেছে বলে জানা গেছে।

খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন এসে আহত চালককে কলেজ বাজার ক্লিনিকে ভর্তি করেন। বিষয়টি জানতে পেরে স্থানীয় লোকজন জুড়ো হয়ে প্রতিবাদ জানালে টোল আদায় কর্তৃপক্ষ জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন। আহত ট্রাক চালক আজিজুর রহমান (৩০) কর্ণফুলী উপজেলার চরলক্ষ্যা এলাকার মৃত লোকমানের পুত্র। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, চট্টগ্রাম শহর থেকে আসা এহসান স্টিলের একটি ট্রাক (চট্টমেট্টো-ট-১১-৪৬০১) শাহ আমানত সেতুর টোল বক্সে ৭০০ টাকা টোল পরিশোধ করে। কিন্তু টোল বক্সের টোল সংগ্রহকারীরা ট্রাক চালককে ৩০০ টাকার স্লিপ দেন। টোল সংগ্রহকারীদের কাছে ট্রাক চালক স্লিপে টোলের পরিমাণ কম দেখানোর কারণ জানতে চাইলে দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে চালককে গাড়ি থেকে নামিয়ে আনসার সদস্য আতিকুর রহমান ও জাহিদসহ ৩/৪ জন মিলে হাতে থাকা রাইফেলের বাট দিয়ে বেধড়ক মারধর করেন। এ সময় ট্রাক চালকের মাথা ফেটে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান।

আহত ট্রাক চালক আজিজুর রহমান বলেন, টোল ৭০০ টাকা পরিশোধ করলেও আমাকে ৩০০ টাকার স্লিপ দেওয়া হয়। এই স্লিপটি কোম্পানিকে দেখাতে ৭শ টাকার স্লিপ চাইলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে রাইফেলের বাট দিয়ে এলোপাতাড়ি মারতে থাকে। রাইফেলের বাটের আঘাতে মাথা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে মারাত্বক আঘাত পান বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে দায়িত্বরত আনসার সদস্য আতিকুর রহমান বলেন, গাড়িটি রাস্তায় থামিয়ে রাখে, একপাশে রাখতে বলা হলেও কথা না শুনায় মারধর করা হয়েছে। ৭শ টাকার জায়গায় ৩শ টাকা স্লিপ দেয়ার বিষয়টি পরে জানতে পেরেছি।

কর্ণফুলী ব্রিজের টোলের দায়িত্বে থাকা ম্যানেজার অপূর্ব সাহা বলেন, ট্রাক চালক গাড়ি নিয়ে রাস্তায় টোল বক্সের পাশে স্লিপ টোকেন নেয়ার জন্য দাঁড়ায়, এই সময় টোল সংগ্রহকারী রাস্তায় যানজট হওয়ার কারণে তাকে গাড়ি সাইড করে রাখার জন্য অনুরোধ করলে সে না যাওয়ায় আনসার সদস্যদের সাথে কথা কাটাকাটির জের ধরে মারধরের ঘটনা ঘটে। ৭ শ টাকার স্লিপের পরিবর্তে ৩শ টাকার স্লিপ দেয়ার বিষয়টি ভুলবসত দেয়া হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেছেন। এই ঘটনায় জড়িত সংগ্রহকারী ও আনসারকে টোল বক্স থেকে অপসারণ করা হয়েছে বলেও দাবি করেন। এ বিষয়ে কর্ণফুলী থানার অফিসার ইনচার্জ ইসমাইল হোসেন জানান, টোল আদায়কে কেন্দ্র করে একজন পরিবহন শ্রমিককে মারধর ও মাথা ফাটিয়ে দেয়ার

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এই ঘটনায় মামলা করলে পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নিবেন বলেও তিনি জানান। অভিযোগ রয়েছে, শাহ আমানত সেতুর টোল আদায়ে একটি সিন্ডিকেট সক্রীয়। প্রতিদিন বিভিন্ন পরিবহনের চালকদের অনেকেই টোলের স্লিপ নেয় না। টাকার অংক পরিবর্তন ও জাল জালিয়াতি করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়।

The Post Viewed By: 113 People

সম্পর্কিত পোস্ট